কলকাতা 

সিবিআইকে রাজ্যে নিষিদ্ধ করে সারদা-নারদা তদন্ত বন্ধ করা যাবে না : সরদার আমজাদ আলী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদক : রাজ্যে সিবিআইকে নিষিদ্ধ করে দেশজুড়ে প্রচারের আলোয় চলে এসেছেন অন্ধের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং আহ্বান জানিয়েছেন, এই দুই রাজ্য যেন তাদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে । কংগ্রেসও এই সিদ্ধান্ত তাদের পরিচালিত রাজ্যগুলিতে এখনই কার্যকর করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী। এই পরিস্থিতিতে আমরা কথা বলেছিলাম বিশিষ্ট আইনজীবী সরদার আমজাদ আলীর সঙ্গে । তিনি আমাদের বলেন, সংবিধান অনুসারে , রাজ্যের এক্তিয়ারে কেন্দ্র সরকার হাত দিতে গেলে তা রাজ্যের অনুমতি নিয়েই করে থাকে । সেই অনুসারে , সিবিআই রাজ্যের বিষয়ে সরাসরি তদন্ত করতে পারে না । হয় তাদেরকে রাজ্য সরকারের পক্ষ অনুরোধ করা হয় নতুবা হাইকোর্ট কিংবা সুপ্রিম কোর্টের আদেশে তদন্ত হাতে নেয় সিবিআই । এখনও পর্যন্ত রাজ্যে যেসব মামলার তদন্ত সিবিআই করছে তার প্রায় সবটাই আদালতের অনুমতি নিয়েই করা হয়েছে ।

সুতরাং সিবিআইকে রাজ্যে নিষিদ্ধ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বড় কোনো কৃতিত্বের কাজ  করেছেন বলে সরদার আমজাদ আলী মনে করছেন না। তিনি বলেন , আসলে সিবিআইকে নিষিদ্ধ করে তিনি নিজেকে প্রচারের আলোয় রাখতে চাইছেন । এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সারদা , নারদা সহ চিটফান্ডের সমস্ত মামলাগুলি সিবিআই পেয়েছে আদালতের নির্দেশে । সুতরাং সিবিআইকে নিষিদ্ধ করে এই মামলার তদন্ত বন্ধ করা যাবে না ।

আর একটি প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন , সারদা ও নারদা এবং রোজভ্যালী মামলায় সিবিআই তদন্তের স্বার্থে যাকে খুশি ডেকে পাঠাতে পারে । জেরা করতে পারে । রাজ্য সরকারের বেশ কয়েকজন পুলিশ অফিসারকে সিবিআই এই মামলায় যে তলব করেছে তা রাজ্যকে মেনে নিতে হবে । কারণ সিবিআই এই মামলাগুলির তদন্ত করছে আদালতের নির্দেশে। সুতরাং রাজ্য সরকার সিবিআইয়ের উপর সাধারণ সম্মতি প্রত্যাহার করলেও তার কোনো প্রভাব সারদা, নারদা ও রোজভ্যালী মামলায় পড়ার সম্ভাবনা নেই । তবে বিজেপি বা মোদী সরকারের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোপন সমঝোতার কারণেই এই তদন্ত প্রক্রিয়ায় গতি আসছে না বলে বর্ষীয়ান আইনজীবী ও প্রাক্তন সাংসদ সরদার আমজাদ আলী মন্তব্য করেন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment