জেলা 

২০২১ -এ রাজ্যে মমতার সরকারই পাল্টে যাবে দাবি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : রবিবার দক্ষিন দিনাজপুর জেলার করদহ-র জনসভার মঞ্চ থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জিকে হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি এদিন বলেন , “২০২১ সালের পর নবান্ন ছেড়ে কালীঘাটে দিদিমণিকে সবজি কাটতে হবে। আর কোনও কাজ থাকবে না।” এদিকে, শনিবার বিজেপি-র সভায় অনেক বামকর্মী ও নেতারা যোগ দেন। গতকালও বিজেপিতে যোগ দিলেন তপনের আরএসপি নেতা ও প্রাক্তন স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ জিল্লুর রহমান। তাঁর নেতৃত্বে করদহে কয়েক হাজার বাম নেতা ও কর্মী বিজেপিতে যোগ দেয়। জিল্লুর রহমান সহ অন্য নেতাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন দিলীপবাবু।  সভায় অন্যান্যদের মধ্যে হাজির ছিলেন বিজেপির জেলা সম্পাদক বাপি সরকার, মালদার সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র, মাফুজা খাতুন সহ অন্য জেলা নেতৃত্ব।
গতকাল জনসভা থেকে দিলীপবাবু বলেন, “যত রাগ সরকারি আধিকারিকদের উপর। ওরা নিরীহ প্রাণী। যাবে কোথায় ! অতএব বদলি করাও। আমি বলছি, সমস্ত সরকারি আধিকারিকদের বদলি করে দিলেও পদ্মফুল আর ঘাসফুল হবে না। ওটা পদ্মফুলই থাকবে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে এক ঝটকাতে তিনজন মন্ত্রীর চাকরি চলে গেছে। ৮ জন মন্ত্রীর দপ্তর বদল হয়েছে। বিজেপি সামান্য ভোট পেয়েছে, তাতেই এই ঝটকা। ২০১৯ এর নির্বাচনে ২২টার বেশি আসন পেলে অর্ধেক মন্ত্রিসভার রদবদল হবে এবং জেলা তৃণমূলের সভাপতি পালটে যাবে। আর ২০২১-এ পুরো সরকারটা পালটে যাবে। তখন দিদিমণিকে নবান্ন থেকে কালীঘাটে গিয়ে সবজি কাটতে হবে। আর কোনও কাজ থাকবে না।”

বিজেপির জেলা সভাপতি প্রসঙ্গেও ক্ষোভ উগরে দেন দিলীপ ঘোষ। পুলিশ সুপারকে কার্যত হুমকি দিয়ে বলেন, “এখানকার এসপি শুভেন্দু সরকারকে বলেছিলেন, ওকে দেখে নেবেন। উনি দেখছেন। কিন্তু যখন আমরা দেখব, তখন ভগবানও ওনাকে দেখবে না। আপনি চাকরি করেন, করুন। রাজনীতি করবেন না। আর যদি রাজনীতি করতে হয়, তাহলে ওই পোশাক খুলে আসুন। আমাদের সঙ্গে লড়ুন। তখন দেখে নেব কত ধানে কত চাল। অবসর নেওয়ার পরও কোর্ট-কাছারি করতে করতে আপনার সময় শেষ হয়ে যাবে।”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment