খেলা জেলা 

জলপাইগুড়িতে প্রাথমিক স্তরের রাজ্য বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিনিধি: এবছর প্রাথমিক ও নিম্ন বুনিয়াদি বিদ্যালয়,শিশু শিক্ষা কেন্দ্র, CWSN এবং মাদ্রাসা সমূহের ছাত্র-ছাত্রীদের ৩৮ তম রাজ্য বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আসর বসেছিল জলপাইগুড়ির বিশ্ববাংলা ক্রীড়াঙ্গনে।১৮ ও ১৯ শে ফেব্রুয়ারী এই রাজ্য বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় মোট ২৪ টি জেলার ক্ষুদে প্রতিযোগী ও প্রতিযোগিনীরা অংশ নেয়।দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছর পরে জলপাইগুড়িতে এই ধরনের রাজ্য ক্রীড়ার আসর বসে বলে সূত্রের খবর।স্বভাবতই ক্রীড়ানুষ্ঠানকে ঘিরে কয়েকদিন জলপাইগুড়ি জেলায় ছিলো উৎসবের মেজাজ।শেষবার ২০০৭ সালে এই ধরনের রাজ্য ক্রীড়া অনুষ্ঠিত হয়েছিল জলপাইগুড়িতে।পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের ডেপুটি সেক্রেটারি ও রাজ্য স্পোর্টসের নোডাল অফিসার ড.পার্থ কর্মকার প্রস্তুতির সমস্ত দিক খতিয়ে দেখতে বেশ কিছুদিন আগেই জলপাইগুড়িতে এসে আস্তানা গেড়েেছিলেন।জেলা অর্গানাইজিং কমিটি তৈরি করে বেশ কয়েকদফা মিটিং করে সমস্ত প্রস্তুতি সেরে নিয়েছিলেন তিনি।

বিশ্ববাংলা ক্রীড়াঙ্গনেই প্রতিযোগী ও প্রতিযোগিনীদের থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল এবং রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত অতিথিদের সরকারি বিভিন্ন আবাসন এবং বেসরকারি হোটেলে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

Advertisement

ক্রীড়ানুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ১৭ তারিখ সকালের বিমানেই বাগডোগরা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান শিক্ষা মন্ত্রী ব্রাত্য বসু।রাজ্যের মোট ২৪টি জেলার ক্ষুদে প্রতিযোগী এবং প্রতিযোগিনীরা মোট ৪৭ টি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করে।

রাজ্য বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার শুভ উদ্বোধন করেন রাজ্যের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী অধ্যাপক ব্রাত্য বসু মহাশয় এবং ক্রীড়া মশাল প্রজ্বলন করেন বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ ভৈরবী রায়।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী শ্রী বুলু চিক বড়াইক, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী উদয়ন গুহ,পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি অধ্যাপক শ্রী গৌতম পাল, জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের সভাপতি শ্রীমতি উত্তরা বর্মন, জেলা শাসক মৌমিতা গোদরা বসু, সুপারিনটেনডেন্ট অফ পুলিশ বিশ্বজিৎ মাহাতো , বিধায়ক খগেশ্বর রায় , বিধায়ক ডা: প্রদীপ কুমার বর্মা,বিশিষ্ট সমাজসেবী মহুয়া গোপ, জলপাইগুড়ি পৌরসভার পৌর মাতা শ্রীমতি পাপিয়া পাল প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দিন একটি সুসজ্জিত শোভাযাত্রা জলপাইগুড়ি শহরের সোনাউল্লা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করে বিশ্ববাংলা ক্রীড়াঙ্গনে এসে পৌঁছায়। এই শোভাযাত্রায় বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং জেলা প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন পর্ষদ সভাপতি অধ্যাপক গৌতম পাল।শিক্ষা মন্ত্রী তার বক্তব্যে খুদেদের খেলা ধুলায় উৎসাহ প্রদানের পাশাপাশি পর্ষদ ও শিক্ষা দফতর যেভাবে স্বচ্ছতার সাথে কাজ করে চলেছেন তার ব্যাখ্যা তুলে ধরেন।

প্রতিযোগিতায় মার্চ-পাষ্টে চ্যাম্পিয়ন হয় জলপাইগুড়ি জেলা। এছাড়াও বয়েজ অ্যাথলেটিকস-এ চ্যাম্পিয়ন হয় দক্ষিণ ২৪ পরগনা, গার্লস অ্যাথলেটিক্স-এ চ্যাম্পিয়ন হয় জলপাইগুড়ি জেলা। সম্পূর্ণ ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় সামগ্রিকভাবে চ্যাম্পিয়ন হয় জলপাইগুড়ি জেলা।

ক্রীড়া প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় দিনে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের ডেপুটি ডিরেক্টর তথা রাজ্য স্পোর্টস- এর নোডাল অফিসার ডঃ পার্থ কর্মকার তার বক্তব্যে এই প্রতিযোগিতাকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য যাদের সহযোগিতা পেয়েছেন তাদের প্রত্যেককে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের শেষে মূল মঞ্চ থেকে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সভাপতি অধ্যাপক গৌতম পাল তার ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্যে পুলিশ,প্রশাসন, দমকল,স্বাস্থ্য দপ্তর, ক্রীড়া কমিটির সাথে যুক্ত সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং পাশাপাশি খুদে প্রতিযোগী এবং প্রতিযোগিনীদের আগামী দিনে আরও বহুদূর এগিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা দেন । প্রতিযোগী এবং প্রতিযোগিনীদের মধ্যে কয়েকজনকে মঞ্চে ডেকে তাদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন থাকা-খাওয়া সহ সমস্ত ব্যবস্থাপনায় তারা যে অত্যন্ত খুশি তা প্রকাশ করেন। পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে প্রত্যেক প্রতিযোগী এবং প্রতিযোগিনীদের পাশাপাশি ক্রীড়া কমিটির সকলের হাতে বিভিন্ন ধরনের উপসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। এবং ক্রীড়া কমিটির সাথে যুক্ত সকলকেই বিভিন্ন ধরনের উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

আয়োজক জেলা জলপাইগুড়ি ডি. পি.এস.সি – র চেয়ারম্যান ও জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক উভয়ই পর্ষদের ব্যবস্থাপনার প্রশংসা করেন।রাজ্য ক্রীড়াকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য গঠিত জেলা অর্গানাইজিং কমিটির ওয়ার্কিং সেক্রেটারি তথা পর্ষদ মনোনীত জেলা স্পোর্টস কো অর্ডিনেটর স্বপন বসাক বলেন জলপাইগুড়ির বিশ্ব বাংলা ক্রীড়াঙ্গনে অনুষ্ঠিত এই রাজ্য বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পর্ষদের সাফল্যের একটি নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ