জেলা 

MLA Giasuddin Molla: খুনের মামলায় অভিযুক্তের পক্ষে দাঁড়িয়ে উস্থি থানার গিয়ে পুলিশ অফিসারদের ওপর চোটপাট করে বিতর্কে প্রাক্তন মন্ত্রী গিয়াস উদ্দিন মোল্লা, এবার কি প্রাক্তন মন্ত্রীর বিদায়ের পালা?

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : থানায় গিয়েছিলেন দাদাগিরি দেখাতে, মগরাহাট পশ্চিমের বিধায়ক ও রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী গিয়াস উদ্দিন মোল্লা । শেষ পর্যন্ত পুলিশের এক রক্ষা মনোভাবে ক্ষমা চেয়ে রক্ষা পেলেন শাসকদলের এই বিধায়ক। ঘটনার সূত্রপাত রবিবার। সেদিন উস্থি থানার ভোলেরহাট কুয়ো থেকে উদ্ধার হয় এক বৃদ্ধার দেহ। কীভাবে মৃত্যু? অভিযোগ, ওই বৃদ্ধাকে নাকি খুন করেছে তাঁর ছেলেই! অভিযুক্ত পলাতক।

এদিকে এই ঘটনার পর জয়ন্ত চৌধুরী নামে এক তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করে উস্তি থানার পুলিস। অভিযোগ, উসকানিমূলক মন্তব্য করে এলাকার শান্তিশৃঙ্খলা নষ্ট করার চেষ্টা করেছেন তিনি। খবর পেয়ে থানায় হাজির হন মগরাহাট পশ্চিমের তৃণমূল বিধায়ক, প্রাক্তন মন্ত্রী গিয়াসুদ্দিন মোল্লা। বিধায়কের বাড়ি থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে অবস্থিত উস্থি থানায় গিয়ে গিয়াস উদ্দিন মোল্লা রীতিমতো আধিকারিকদের উপর চোটপাট শুরু করে দেন। এরপরেই ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান ডায়মন্ড হারবারের এসডিপিও মিতুন দে। তিনি রীতিমত বিধায়ককে ধমকের সুরে বিভিন্ন প্রশ্ন করতে থাকেন এবং একজন অপরাধীকে ছাড়াতে আসাটা তার পক্ষে সমীচীন হয়নি বলে এসডিপিও সাহেব স্পষ্ট জানিয়ে দেন। আর এতেই আরো তেতে ওঠেন গিয়াস উদ্দিন মোল্লা তিনি পুলিশকে দু টাকার চাকর বলে মন্তব্য করেন।

Advertisement

অভিযোগ, থানায় ঢুকে কর্তব্যরত পুলিসকর্মীদের সঙ্গে রীতিমতো অভব্য আচরণ করেন বিধায়ক। এমনকী, হুমকিও দেন! এরপর যখন ডায়মন্ড হারবারের এসডিপও মিতুন দে থানায় পৌঁছন, তখন বিধায়কের সঙ্গে তুমুল বাকবিতণ্ডা শুরু হয় তাঁর। সেই ভিডিয়োই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, থানার সিঁড়িতে বসে তৃণমূল বিধায়ক গিয়াসউদ্দিন মোল্লা। এসডিপিও তাঁর কাছে জানতে চাইছেন, ‘কেন অভিযুক্তকে ছাড়াতে এত তৎপরতা’? তাঁর আরও বক্তব্য, ‘কথায় কথায় আপনি কেন পুলিশের উর্দি খুলে নেওয়া, বদলির হুমকি দেন’?” পাল্টা বিধায়ক বলছেন, ‘গিয়াসুদ্দিন মোল্লা ভদ্রঘরের ছেলে। কাউকে হুমকি দেয় না’। এরপর পুলিসকে ‘২ টাকার চাকর’ বলে কটাক্ষ করতে শোনা যায়।

এরপর রীতিমত পুলিশের চাপে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী। এসডিপিও সাহেবের অনড় অবস্থানে শেষ পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে তিনি ক্ষমা চান বলে সূত্রের খবর। জানা গেছে গিয়াস উদ্দিন মোল্লার এই আচরণে তৃণমূল অসন্তোষ ব্যক্ত করেছে তাঁর প্রতি দলের কোপ নেমে আসতে পারে বলে ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ