দেশ 

সোস্যাল মিডিয়ায় ইসলাম সম্পর্কে কুরুচিকর মন্তব্য করায় দায়ে গ্রেফতার কলেজ ছাত্রীকে ৫টি কোরান বিলি করার শর্তে জামিন দিল রাঁচির আদালত ; এই শর্ত মানতে নারাজ ; অভিযুক্ত হাইকোর্টে যাচ্ছেন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : অভিনব শর্তে জামিন ! বর্তমান সময়ে হিন্দুবাদী সংগঠনের দাপটে যখন সাধারন মানুষ সন্ত্রস্ত । আর প্রতিটি মুহুর্তে একটি বিশেষ সম্প্রদায়কে টার্গেট করে সাম্প্রদায়িক বিষ ছড়ানো হচ্ছে সেখানে দেশের এক আদালতের জামিনের শর্ত দেখে চমকে উঠেতে হয় । আবার সেই রাজ্যটি বিজেপি শাসিত রাজ্য ।

সম্প্রতি রাঁচি এক আদালত এক মামলায় জামিনের শর্ত হিসাবে ৫টি কোরান শরীফ বিলি করতে বলেছেন । আর এমন একজন মেয়েকে এই কোরান শরীফ বিলি করার নির্দেশ দিয়েছেন যিনি নিজে ইসলাম বিরোধী মন্তব্য সোস্যাল মিডিয়ায় করার জন্য গ্রেফতার হয়েছিলেন । ছাত্রীটির নাম রিচা ভারতী । সে ইসলাম ও মুসলমানদের সম্পর্কে খারাপ ধারনা পোষণ করেন । এমনকি জমিনের শর্ত হিসাবে রাঁচির আদালত কোরান বিলি করার যে নির্দেশ দিয়েছেন তা তিনি মানবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন ।

উল্লেখ্য , ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করার জন্য কলেজ ছাত্রী ১৯ বছরের রিচা ভারতীকে রাঁচির পুলিশ গ্রেফতার করে। তাকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হলে তার আইনজীবী রামপ্রবেশ সিং জামিনের আবেদন করেন । জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মনীশ কুমার অভিযুক্ত বলেন ৫ টি কোরান শরীফ বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে প্রশাসনের উপস্থিতিতে ১৫ দিনের মধ্যে বিলি করতে হবে । আর এই শর্তেই তাকে জামিন দেওয়া হচ্ছে । তবে আদালতের নির্দেশে রিচা অসন্তুষ্ট। এক সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, নিজের অবস্থানে অনড় থাকবেন।

রিচা স্থানীয় কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। শনিবার রাতে গ্রেফতার হওয়ার পর জেলে থাকেন। অভিযোগ, সোশ্যাল মিডিয়ায় ইসলামের বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য শেয়ার করেছেন। তাঁর মুক্তির দাবিতে হিন্দু সংগঠন ধর্না আন্দোলন শুরু করে।

অভিযুক্তের আইনজীবী রামপ্রবেশ সিং বলেন, ১৫ দিনের মধ্যে কোরানের কপি বিলি করতে হবে। এবং এটা করতে হবে প্রশাসনিক কর্তার উপস্থিতিতে। ১৫ দিনের মধ্যে আদালতে এই নিয়ে রিপোর্ট দিতে হবে। তবে রিচা ভারতী রাঁচির নিম্ন আদালতের এই নির্দেশকে মানবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন । তিনি হাইকোর্টে যাবেন বলে জানিয়েছেন ।

রাঁচি আদালতের জামিনের শর্তকে অনেকেই স্বাগত জানিয়েছেন । বিশিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন , সব আদালতের বিচারকরা কিংবা বিচারপতিরা যদি মনীশ কুমারের মত এই ধরনের শর্ত আরোপ করে জামিন দিতে শুরু করে তাহলে অচীরেই পরস্পরের ধর্ম সম্পর্কে শ্রদ্ধাবোধ আসতে বাধ্য হবে । সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ প্রচারকারীদের আদালত যদি এই ধরনের শর্ত আরোপ করতে থাকে তাহলে অবশ্যই সম্প্রীতির বাতাবরণ তৈরি হবে ।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment