দেশ 

‘‘একবিংশ শতাব্দীতে শুধু দু’টিই জাতি থাকবে। একটি জাতি, যাঁরা দারিদ্র থেকে মুক্তি চাইছেন। দ্বিতীয় জাতি, যাঁরা সেই দারিদ্র মুক্তি দিতে সাহায্য করছেন।’’ বিপুল জনাদেশের পর দেশবাসীর উদ্দেশ্যে মোদীর বার্তা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : গেরুয়া ঝড়ে উদ্বেলিত ভারত । বিপুল জনাদেশ ক্ষমতায় ফিরল বিজেপি । মোদী ঝড়ে উড়ে গেল কংগ্রেস বিরোধীরা । এমনকি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী আমিঠিতে হেরে গেছেন । ইন্দিরা গান্ধীর পর তিনিই ৫০ বছরের মধ্যে প্রথম প্রধানমন্ত্রী যিনি একক গরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় ফিরলেন ।

এই জয়ের দেখা গেল অনেক বেশি সংযত । মোদী দলের পার্টি এসেই দেশের মানুষের উদ্দেশ্যে যে ভাষণ দিলেন তাতে আবেগ থাকলে কোনো ঔদ্ধত্য প্রকাশ পায়নি । এদিন কর্মীদের কাছে বক্তব্য রাখতে গিয়েও মোদী প্রথমে বললেন, ‘‘আজ মেঘরাজাও বিজয় উৎসবে শরিক হয়েছেন। গোটা বিশ্বে ইতিহাস রচনা করেছে ভারতের জনতা। ফকিরের ঝোলা আপনারা ভরে দিয়েছেন। এ জয় ভারতের সব নাগরিকের।’’

মোদী আরও বললেন, ‘‘একবিংশ শতাব্দীতে জনতার মনের মূল্যায়নও বদল করতে হবে। মোদী বলেন, ‘‘একবিংশ শতাব্দীতে শুধু দু’টিই জাতি থাকবে। একটি জাতি, যাঁরা দারিদ্র থেকে মুক্তি চাইছেন। দ্বিতীয় জাতি, যাঁরা সেই দারিদ্র মুক্তি দিতে সাহায্য করছেন।’’ বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে মোদী এই ফাঁকে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগও ঝেড়ে ফেলতে চাইলেন। প্রথমত দাবি করলেন, যাঁরা নিজেদের ধর্মনিরপেক্ষ বলে তাঁকে গাল পাড়তেন, তাঁদের মুখ বন্ধ হল। দুই, বিরোধীরা এত জোট বেঁধেও মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে টুঁ শব্দ করতে পারেননি। তিন, তাঁর বিরুদ্ধে নাকি দুর্নীতির কোনও অভিযোগ কেউ তুলতে পারেননি। এর পর আরও তিনটি প্রতিশ্রুতি দিলেন। তাঁর কাজে ভুল হতে পারে, কিন্তু কোনও খারাপ উদ্দেশে কাজ করবেন না। নিজের জন্য কোনও দিন

এই প্রবল জনমতকে ‘বিনম্রতা’র সঙ্গে গ্রহণ করে মোদী বলেন, ‘‘মহাভারতেও যুদ্ধের শেষে কৃষ্ণকে প্রশ্ন করা হয়, তিনি কার পক্ষে? কৃষ্ণ জবাব দেন তিনি হস্তিনাপুরের পক্ষে। আজ ১৩০ কোটি ভারতীয়ও ভারতের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। বিজেপি কখনও দু’টি আসন পেয়েছে। আজ যখন ‘দো সে দোবারা’ হল, তখনও বিজেপি আদর্শ, সংস্কার থেকে পথভ্রষ্ট হয়নি। মানুষ যে ভরসা রেখেছেন, তাতে আমাদের দায়িত্ব আরও বাড়ল।’’

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment