দেশ 

‘‘প্রচারের সময়েই বলেছি, জনতা মালিক। জনতা স্পষ্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সে কারণে নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপি-এনডিএকে অভিনন্দন জানাই “ লোকসভা ভোটের ফল বের হওয়ার পর রাহুল গান্ধীর প্রতিক্রিয়া

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বিগত এক বছর ধরে মোদীকে টার্গেট করে প্রচার শুরু করেছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তার মধ্যে গোবলয়ের তিনটি রাজ্য বিজেপির কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছিল কংগ্রেস । তাই কংগ্রেস কর্মীদের মনে ধারনা জন্মেছিল এবার হয়তো মোদীকে হারিয়ে কংগ্রেসের গৌরব ফিরিয়ে আনবেন রাহুল । কিন্ত তা আর হল না । আগামী ৫ বছরের মধ্যে সেই সম্ভানা দেখা যাচ্ছে না । কারণ বিপুল জনাদেশ নিয়ে ক্ষমতায় এসেছে মোদী সরকার । দেশের রাজনীতিতে কার্যত কংগ্রেস এক ঘরে হয়ে গেছে । ১২টি রাজ্যে খাতা খুলতে পারেনি কংগ্রেস । এমনকি সদ্য জেতা তিনটি রাজ্য মধ্যপ্রদেশ , রাজস্থান ,গুজরাটে একটি আসনে জিততে পারেনি কংগ্রেস । তাই গতকাল লোকসভা ভোটের ফল ঘোষণার পর থেকেই শুনসান হয়ে এআইসিসি অফিস ।

এদিন দশ জনপথ থেকে একযোগেই সাংবাদিক বৈঠকে এসেছিলেন রাহুল-প্রিয়ঙ্কা। তবে প্রিয়ঙ্কা মঞ্চে না-উঠে পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন। রাহুল বলেন, ‘‘প্রচারের সময়েই বলেছি, জনতা মালিক। জনতা স্পষ্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সে কারণে নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপি-এনডিএকে অভিনন্দন জানাই। ভোটের লড়াই ছিল দু’টি ভিন্ন আদর্শের। প্রচারেই বলেছি, আমার উপরে যে আক্রমণই হোক, আমি ভালবাসায় জবাব দেব। ভালবাসা কখনও হারে না।’’ প্রিয়ঙ্কাও বলেন, ‘‘জনগণের রায় মেনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি কর্মীদের অভিনন্দন জানাচ্ছি।’’

মোদী এবং এনডিএ-কে টুইটারেও অভিনন্দন জানান রাহুল। যার উত্তরে মোদী রাহুলকে লেখেন, ‘‘আপনার শুভেচ্ছার জন্য ধন্যবাদ।’’ তবে রাহুল যতই পরাজয়ের দায় স্বীকার করুন, দলের মধ্যেই তাঁর নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। কারণ, মোদী-ঝড়ের মধ্যে মুখ রেখেছে শুধু পঞ্জাব ও কেরল। মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তীসগঢ়ে ক্ষমতায় এলেও সেখানে লোকসভা ভোটে ‘হাত’ উধাও। তা ছাড়া, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, কর্নাটকের মতো রাজ্য বিজেপি এর পর ছিনিয়ে নেবে কি না, তা নিয়ে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে, প্রশ্ন উঠেছে দেশে কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ নিয়ে। এ দিন রাহুলকে প্রশ্ন করা হয়, যে সব মৌলিক বিষয় নিয়ে তিনি ভোটে গিয়েছেন, পাল্টা চালে সেগুলিকে কী ভাবে নস্যাৎ করে দিল বিজেপি? কংগ্রেসের কি তবে রণকৌশল বদলানোর সময় এসেছে? কংগ্রেস কোথায় ভুল করল? সরাসরি জবাব এড়িয়ে রাহুল বলেন, ‘‘আজ জনতার রায় এসেছে। ফলে আজ আমি কী বলছি, তার কোনও অর্থ নেই। তবে এখনও মনে করি, দেশের অনেক মানুষ কংগ্রেসের আদর্শে ভরসা রাখেন। আমি সকলকে ভরসা দিতে চাই, আপনারা ঘাবড়াবেন না, ভয় পাবেন না। আত্মবিশ্বাস হারাবেন না।’’

কংগ্রেস সূত্রের মতে, আগামী শনিবার মধ্যেই কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকে হারের কারণ বিশ্লেষণ হবে। গাঁধী পরিবারের ঘনিষ্ঠ নেতা রাজীব শুক্ল বলেন, ‘‘এই ফল আমাদের কাছে আশ্চর্যের বিষয়। ২০১৪ সালের প্রতিশ্রুতি পালন না করেও কী করে বিজেপির ভোট বাড়ল!’’ প্রিয়াঙ্কার প্রচারেও কি কোনও ছাপ পড়ল না? রাজীবের জবাব, ‘‘এ বারের ভোটে প্রিয়াঙ্কাকে কোনও দায়িত্ব তেমন দেওয়াও হয়নি। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার জন্য তিনি লড়বেন!’’ কিন্তু দিল্লি দূর অস্ত্ তো শুধু কথার কথা নয়!

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment