জেলা 

বিমল গুরুং-র চালে পাহাড়ের রাজনৈতিক সমীকরণ বদলাতে চলেছে ?

শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : অনেক আশা নিয়ে পাহাড়ের ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী । কিন্ত এভাবে হঠাৎ-ই পাহাড়ে ভোটের সমীকরণ হঠাৎ বদলে যাবে তা কল্পনা করতে পারেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  আসলে ওস্তাদের মার শেষ রাতে হয় ।ঠিক একইভাবে বিনয় তামাংদের প্রাক্তন নেতা বিমল গুরুং সঠিক সময়েই মারটি দিয়েছেন বলে রাজনৈতিক মহল মনে করছেন । কারণ এবার  এনডিএ-এর দিকে ঝুঁকে পড়লেন জিএনএলএফ নেতা  মন ঘিসিং। এর নেপথ্যে হাত রয়েছে বিজেপির ঘনিষ্ট  বিমল গুরুং-এর।

উল্লেখ্য, গত দু’বারের নির্বাচনের মতো পাহাড়ে এ বার বিজেপি হাওয়া নেই। কারণ এই মুহূর্তে পাহাড়ে যিনি রাজনৈতিক সর্বেসর্বা সেই বিনয় তামাং তৃণমূলের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। ফলে দার্জিলিংয়ের মোর্চা বিধায়ক অমর সিংহ রাই এ বার তৃণমূলের প্রতীকে প্রার্থী হচ্ছেন।

তৃণমূল এবং বিজেপির থেকে দূরত্ব বজায় রেখে আলাদা ভাবে ঐকমত্যের ভিত্তিতে একটি প্রার্থী দেওয়ার জন্য গত সপ্তাহেই বৈঠক করে ১৬টি দল। সেই বৈঠকে সিপিএম, কংগ্রেস ছাড়াও পাহাড়ের জিএনএলএফ, জন আন্দোলন পার্টি, সিপিআরএম ছিল। কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় সমীকরণ হঠাৎ করেই বদলে গিয়েছে। এর নেপথ্যে রয়েছে অজ্ঞাতবাসে থাকা বিমল গুরুং। গুরুংদের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন জিএনএলএফ নেতা মন ঘিসিং।

এক কালে বিমল গুরুংদের প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন জিএনএলএফ নেতৃত্ব। জিএনএলএফের অভিযোগ ছিল, গুরুংদের জন্যই শেষ বয়সে কষ্টে থাকতে হয়েছে সুভাষ ঘিসিংকে। কিন্তু সে সব এখন অতীত। বিভিন্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে, ইতিমধ্যেই বিমল গুরুং-রোশন গিরির প্রতিনিধিদের সঙ্গে একপ্রস্ত বৈঠক সেরে নিয়েছেন মন ঘিসিং। কানাঘুষো এও শোনা যাচ্ছে, মন ঘিসিং বিজেপি সমর্থিত প্রার্থীও হয়ে যেতে পারেন।


শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment