দেশ 

প্রধান বিচারপতির নির্দেশ সত্বেও শুক্রবারও মহুয়া মৈত্রের সাংসদ পদ খারিজ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে শুনানি হলো না! নেপথ্যে কারণ ?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মহুয়া মৈত্রের সাংসদ পদ খারিজ নিয়ে শুক্রবার শুনানি হলো না সুপ্রিম কোর্টে। সংসদ পদ খারিজের বৈধতা কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তৃণমূলের নেত্রী ও কৃষ্ণনগরের প্রাক্তন সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তিনি গত বুধবার সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেন কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট জানিয়ে দেয় এখনই এই মামলার শুনানি হবে না। দোষটা জানুয়ারি এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল। এটা বৃহস্পতিবার সকালে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়।

বুধবার মহুয়ার মামলাটির দ্রুত শুনানি চেয়ে বিচারপতি সঞ্জয় কিষেণ কউল এবং বিচারপতি সুধাংশু ধুলিয়ার বেঞ্চের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তাঁর আইনজীবী অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। বিচারপতি কউল জানিয়েছিলেন, মামলাটির দ্রুত শুনানি করা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। তিনি মহুয়ার আইনজীবীকে প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করতে বলেন। তার পরে প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের এজলাসে গিয়ে একই বিষয়ে আর্জি জানান সিঙ্ঘভি। তাঁর আবেদন ছিল, বৃহস্পতিবার অথবা শুক্রবার মামলাটির শুনানি হোক। শুনে প্রধান বিচারপতি ইমেল মারফত আবেদন করতে বলেন। বিষয়টি তিনি বিবেচনা করবেন বলেও আশ্বাস দেন। এর পরে বৃহস্পতিবার রাতে জানা গিয়েছিল, মহুয়ার আর্জিতে সাড়া দিয়ে শুক্রবারই মামলাটি শুনতে রাজি হয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

Advertisement

বিচারপতি সঞ্জীব খন্না এবং বিচারপতি এসভিএন ভাট্টির ডিভিশন বেঞ্চে মহুয়ার মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল শুক্রবার। কিন্তু তা হচ্ছে না। মামলার শুনানি ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি খন্না জানান, তাঁদের কাছে এই মামলার ফাইল শুক্রবার সকালেই পৌঁছেছে। তাঁরা এখনও মামলাটি পড়ে দেখার সময় পাননি। তাই শুক্রবারেই এই মামলার শুনানি সম্ভব নয়।

প্রশ্ন-ঘুষ মামলায় গত ৮ ডিসেম্বর লোকসভা থেকে বহিষ্কার করা হয় কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়াকে। লোকসভার এথিক্স কমিটির রিপোর্ট মেনেই এই সিদ্ধান্তের কথা জানান স্পিকার ওম বিড়লা। মহুয়া এবং তৃণমূলের তরফে এথিক্স কমিটির ওই রিপোর্টের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। মহুয়াকে সংসদে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগও দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। সাংসদ পদ খারিজের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন মহুয়া।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ