প্রচ্ছদ 

Mamata Banerjee: অনুব্রতকে গ্রেফতার করতে চায় ! বগটুই নিয়ে বিজেপির রিপোর্টে অভিসন্ধি ধরা পড়ে গেছে, সিবিআই তদন্তকে প্রভাবিত করা হতে পারে দাবি মমতার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আজ বুধবার বিজেপির পক্ষ থেকে রামপুরহাটের বগটুইয়ে পুড়িয়ে মারার ঘটনা নিয়ে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কাছে দলের পক্ষ থেকে করা তদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়েছে । আর বিজেপির দলীয় রিপোর্ট নিয়ে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় । তিনি দার্জিলিংয়ে দাঁড়িয়ে বলেন,“বগটুইয়ের তদন্তে সিবিআইকে (CBI) সহযোগিতা করছে রাজ্য সরকার। বিজেপি নিজস্ব রিপোর্ট দিয়ে তদন্তকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। এই রিপোর্ট প্রতিহিংসামূলক। বিজেপির আচরণ অত্যন্ত নিন্দনীয়। আমি ওদের রিপোর্ট দেখেছি। ওরা কোনও তদন্ত ছাড়াই কীভাবে জেলা তৃণমূল সভাপতির নাম বলল? কী করে জানছে কে ঘটনায় জড়িত? আসলে বিজেপি চায় ওকে গ্রেপ্তার করা হোক।”

উল্লেখ্য, বগটুইয়ের ঘটনার ঘটার পরেই বিজেপি দল এর সত্য উদ্ঘাটনের জন্য একটি কমিটি তৈরি করে । সেই কমিটির পক্ষে আজ বুধবার  বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, ভারতী ঘোষ, রাজ্যসভার সাংসদ শ্রী ব্রজলাল, সাংসদ সত্যপাল সিং এবং সাংসদ শ্রী কেসি রামমূর্তি বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার  (JP Nadda) কাছে যান। বগটুই কাণ্ড নিয়ে রিপোর্ট জমা দেন তাঁরা। ওই রিপোর্টে বাংলার আইনশৃঙ্খলার অবনতির অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও ঘটনার দিন পুলিশকর্মী এবং এসডিপিও’র ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। রাজ্য সরকারি কর্মীদের তাঁদের সাংবিধানিক দায়িত্ব সম্পর্কে অবগত করা প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে ওই রিপোর্টে।

মুখ্যমন্ত্রীকে পালটা জবাব দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বেনজির আক্রমণ করেন। বিজেপি রাজ্য সভাপতির দাবি, “এত বড় ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছিল। বগটুই গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। তাই রিপোর্টে ভুল কিছু থাকতে পারে না।”

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ