দেশ 

জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্তের তুলনা করলেন উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার স্পিকার, বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে দাবি হৃদয় নারায়ন দীক্ষিতের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বিজেপি দলের নেতারা যেন একইসঙ্গে বহুরুপী হয়ে উঠেছেন। এমন এক পরিস্থিতি তৈরি করছেন সমগ্রহ দেশজুড়ে মনে হচ্ছে যেন কোন সংস্কৃতির বালাই নেই। জাতির জনক মহাত্মা গান্ধী কে ছাড় দেয়া হচ্ছে না তাকে নিয়ে ব্যঙ্গ বিদ্রুপ করে চলেছেন বিজেপির নেতারা। এবার উত্তর প্রদেশ বিধানসভার স্পিকার হৃদয় নারায়ন দীক্ষিত মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে রাখি সাওয়ান্তের তুলনা করে বিতর্কের সৃষ্টি করলেন।

উন্নাও জেলার বঙ্গারমাও বিধানসভা এলাকায় ‘প্রবুদ্ধ বর্গ সম্মেলনে’ বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন হৃদয় নারায়ণ দীক্ষিত। বিজেপি নেতার মতে, পড়াশোনা করলেই কেউ মহান হয়ে যায় না। মহান হতে গেলে কিছু গুণ থাকা আবশ্যক। এই প্রসঙ্গেই তিনি মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে রাখি সাওয়ান্তের তুলনা টানেন। জানান, গান্ধীজি নিয়মিত সংবাদপত্র পড়তেন। কম পোশাক পরতেন। শুধু ধুতি পরে থাকতেন। গোটা দেশ তাঁকে বাপু বলে ডাকে। কথার পরিপ্রেক্ষিতে আচমকা হৃদয় নারায়ণ বলে বসেন, “যদি কাপড় খুলে ফেললেই কেউ মহান হয়ে যেতে পারে, তাহলে রাখি সাওয়ান্ত (Rakhi Sawant) মহাত্মা গান্ধীর চেয়েও বড় হয়ে যেতেন।”

বিজেপি (BJP) নেতার এই মন্তব্যের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। তাতেই তুমুল সমালোচনা হয়। বিরোধীরা প্রবীণ নেতার পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশের শাসকদল বিজেপিকেও একহাত নেন। বিধানসভার স্পিকারের মুখ থেকে এমন কথা আশা করা যায় না বলেও মন্তব্য করা হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ার তীব্র সমালোচনার জেরে নিজের বক্তব্যের সাফাই দিয়ে টুইট করেন হৃদয় নারায়ণ দীক্ষিত। টুইটারে তিনি লেখেন, “সোশ্যাল মিডিয়ায় আমার বক্তব্যের কিছু অংশ বিকৃত করে প্রচার করছে। আসলে এটা উন্নাওয়ের প্রবুদ্ধ সম্মেলনের দীর্ঘ ভাষণের একটি অংশ মাত্র। যেখানে সঞ্চালক আমার পরিচয় দিতে গিয়ে আমাকে প্রসিদ্ধ লেখক হিসেবে ব্যাখ্যা করেছিলেন। এই প্রেক্ষিতেই বলে চেয়েছিলেন কয়েকটি বই লিখলেই কেউ প্রসিদ্ধ হয়ে যায় না।”

এরপরই আবার উত্তরপ্রদেশের বিধানসভার স্পিকার অনুরোধ করেন, তাঁর কথার ভুলভাবে যেন ব্যাখ্যা করা না হয়।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ