দেশ 

উন্নাওয়ে নাবালিকা গণধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলেন প্রাক্তন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : উন্নাওয়ে নাবালিকা ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলেন বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গার । আজ সোমবার দিল্লির এক আদালত তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে। ধর্ষণ, ভয় দেখানো-সহ শিশুদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতন বিরোধী পকসো আইনের একাধিক ধারায় বহিষ্কৃত বিজেপি নেতাকে সোমবার দোষী সাব্যস্ত করেছে দিল্লির তিস হাজারি আদালত। আগামী ১৯ তারিখ সাজা ঘোষণা হতে পারে। তবে এই মামলায় অন্য অভিযুক্ত শশী সিংহকে বেকসুর খালাসের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। তবে সেঙ্গারের বিরুদ্ধে নির্যাতিতাকে গাড়ি দুর্ঘটনা ঘটিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ-সহ অন্য মামলাগুলি চলছে।

২০১৭ সালে উন্নাওয়ের নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে সেই সময় উত্তরপ্রদেশের বাঙ্গেরমউ কেন্দ্রের চার বারের বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গার ও শশীর বিরুদ্ধে। সেই মামলায় পুলিশের চার্জশিটের ভিত্তিতে পকসো আইনে ১২০বি (ষড়যন্ত্র), ৩৬৩ (অপহরণ) ৩৬৬ (অপহরণ ও বিবাহের জন্য বাধ্য করা) ৩৭৬ (ধর্ষণ)-সহ একাধিক ধারায় চার্জ গঠন করে আদালত। তার পর আজ সেঙ্গারকে দোষী সাব্যস্ত করেন বিচারক ধর্মেশ শর্মা।

উল্লেখ্য , বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিং সেঙ্গার নাবালিকা গণধর্ষণ মামলা চাপা দেওয়ার জন্য নির্যাতিতার পরিবারের উপর আক্রমণ করে বলে অভিযোগ । এমনকি নির্যাতিতার বাবাকে পুলিশ পিটিয়ে মেরে ফেলে বলে অভিযোগ ওঠে । শেষ পর্যন্ত ওই নির্যাতিতা ও তার সঙ্গীদের গাড়ি চাপা দিয়ে মেরে ফেলারও অভিযোগ ওঠে । পরবর্তীতে সুপ্রিম কোর্টের আদেশে নির্যাতিতার মামলা উত্তরপ্রদেশের রায়বেরিলী আদালত থেকে সরিয়ে দিল্লির আদালতে আনা হয় । সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নির্দেশে নির্যাতিতার পরিবারকে নিরাপত্তা দেওয়া হয় । একই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের কড়া অবস্থানের পরেই এই বিধায়ককে দল থেকে বহিস্কার করা হয় । তার আগে পর্যন্ত এই বিধায়ককে বাঁচানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ থেকে শুরু করে সাংসদ সাক্ষী মহারাজ পর্যন্ত চেষ্টা করে গেছেন ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment