দেশ 

নির্বাচন কমিশনের নজীরবিহীন সিদ্ধান্তে সরছেন স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইপিএস রাজীব কুমার ; প্রচারে সময় একদিন কমানো হল , আইনশৃঙ্খার অবনতি হলে আরও কড়া হবে কমিশন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : স্বাধীনতার পর এই প্রথম নির্বাচন কমিশন নজীরবিহীন সিদ্ধান্ত নিল । যা সমগ্র দেশের নির্বাচনের ইতিহাসে এই প্রথম । আর মাত্র কয়েকটি দিন বাদে শেষ দফার নির্বাচন ছিল রাজ্যে । কিন্ত তা নির্বিঘ্নে হল না । নজীরবিহীনভাবে সরিয়ে দেওয়া হল রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবকে । স্বরাষ্ট্রসচিবের কাজ দেখবেন মুখ্যসচিব। একইসঙ্গে  রাজ্যে সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রচারে একদিন জরিমানা করল নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অবাঞ্ছিত হস্তক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে।

স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে সরানো হয়েছে আবার টার্গেট করা হয়েছে কলকাতার প্রাক্তন পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারকেও। নির্বাচনের আগে তাঁকে এডিজি সিআইডি পদে বসিয়েছিল রাজ্য সরকার। এবার রাজীব কুমারকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। ১৬ মে  দিল্লির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে রিপোর্ট করতে হবে তাঁকে। নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিল, স্বাধীনতার পর প্রথমবার অনুচ্ছেদ ৩২৪-এর প্রয়োগ করা হল। তবে হিংসা ও অরাজকতার পরিবেশ থাকলে এমন সিদ্ধান্তে আগামী দিনেও নেবে কমিশন। শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠ ভোটের লক্ষ্যেই এটা করা হয়েছে।

এনিয়ে স্বাভাবিকভাবেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই সিদ্ধান্তে ক্ষুদ্ধ হয়েছেন । তিনি দাবি করেছেন এটা সম্পূর্ণ সংবিধান বিরোধী । রাজ্যের অধিকারে হস্তক্ষেপ । যদিও আইনবিদরা মনে করছেন , নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত নজীরবিহীন ঠিকই , কিন্ত বেআইনি নয় । কংগ্রেস, সিপিএম বিজেপি সহ সমস্ত বিরোধী দল নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ।

এরইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের ৯টি লোকসভা কেন্দ্র-দমদম, বারাসত, বসিরহাট, জয়নগর, মথুরাপুর, ডায়মন্ড হারবার, উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতায় আগামিকাল অর্থাত্ বৃহস্পতিবার রাত ১০টা পর্যন্ত প্রচার করতে পারবে সবকটি রাজনৈতিক দল।

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment