জেলা 

তৃণমূল নেত্রীর সভায় সব্যসাচী দত্ত ; তাঁকে দেখেই কর্মীদের গো-ব্যাক শ্লোগান ; তবে মমতার সঙ্গে একান্তে কথা সব্যসাচীর ; কী বললেন দলনেত্রী জানতে চান ? ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : অবশেষে বিধাননগরের মেয়রকে দেখা গেল বারাসত লোকসভার প্রার্থী কাকলি ঘোষ দস্তিদারের প্রচারসভায় । বৃহস্পতিবার রাজারহাট-নিউটাউনে তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বাচনী জনসভার মঞ্চেই দলনেত্রীর মুখোমুখি হলেন সব্যসাচী। আর এই নির্বাচনী সভা সব্যসাচী যেতেই তাঁকে শুনতে হয় গো-ব্যাক শ্লোগান । মুখ্যমন্ত্রী এই সভার প্রধান বক্তা ছিলেন । তাই বিধাননগরের মেয়র হিসাবে সভায় উপস্থিত থাকতে তিনি বাধ্য হয়েছিলেন । কিন্ত বিগত কয়েক দিন ধরে তিনি বারাসত লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে বিধাননগরও পড়ে । তা সত্ত্বে এবার কাকলি ঘোষ দস্তিদারের জন্য মেয়র সব্যসাচীকে প্রচার করতে দেখা যায়নি । যদিও পাশের কেন্দ্র দমদম লোকসভার প্রার্থী সৌগত রায়ের সমর্থনে তিনি বেশ কয়েকটি সভা করেছেন ।এদিন রাজারহাট-নিউটাউনের সভায় নেত্রী পৌঁছানোর মিনিট পাঁচেক আগে যান সব্যসাচী। মঞ্চে তাঁকে উঠতে দেখেই বিক্ষোভ দেখান কর্মীদের একাংশ। ‘গো ব্যাক সব্যসাচী’ বলে চিত্কারও করতে থাকেন অনেকে।

যদিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতক্ষণ মঞ্চে ছিলেন, ততক্ষণই উপস্থিত ছিলেন বিধাননগরের মেয়র। সভা শেষে তাঁর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে একান্তে কথা বলতেও দেখা যায়।

অন্যদিকে বিধাননগরের কাউন্সিলরদের প্রতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরামর্শ, পুরনিগমের কাজে ফাঁকি দেওয়া যাবে না। রাস্তাঘাট আরও ভালো করতে হবে। জমিহারাদের কাজ দেওয়ার নির্দেশও দেন মুখ্যমন্ত্রী।

একই সঙ্গে তিনি জানান ভালো নেতা হতে গেলে কী গুণ থাকতে হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে, এলাকার নেতা হতে গেলে এলাকার মানুষের সঙ্গে থাকতে হবে।

কিন্তু সভায় একেবারে শেষমুহূর্তে কেন পৌঁছলেন সব্যসাচী? এই প্রশ্নের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়কের মন্তব্য, “আগে গেলে বাঘে খায়।”

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment