আন্তর্জাতিক দেশ 

২০১৪ সালে ইভিএম হ্যাক করেই ক্ষমতায় এসেছে বিজেপি দাবি মার্কিন সাইবার ও ইভিএম বিশেষঞ্জের ; এই তথ্য জেনে যাওয়ার জন্য গোপীনাথ মুন্ডেকে অকালে চলে যেতে হয়েছে বলে অভিযোগ

শেয়ার করুন
  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির পরাজয় কী নিশ্চিত ? নানা ঘটনাক্রম সেই রকমই বার্তা দিচ্ছে । সিবিআই-এ বিদ্রোহ, আরবিআই –এ বিদ্রোহের পর এবার সরাসরি অভিযোগ উঠেছে ২০১৪ সালে নাকি বিজেপি ইভিএম হ্যাক করে ক্ষমতায় এসেছে । আর এই অভিযোগ দেশের মানুষের মনে সন্দেহ দানা বাধে তাহলে বিজেপির সমূহ বিপদ হতে পারে ।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে নাকি ইভিএম হ্যাক করেই ক্ষমতায় এসেছিল বিজেপি । এমনই দাবি করেছেন মার্কিন সাইবার বিশেষঞ্জ সৈয়দ সূজা । তিনি আজ লন্ডনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে নিজেকে ইভিএম বিশেষজ্ঞ বলে দাবি করে বলেন ,২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচন পুরোটাই রিগিং হয়েছে। অর্থাৎ তাঁর দাবি, বিজেপি রিগিং করে ইভিএম বিভ্রাট করে ক্ষমতায় এসেছে। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের আগে ইভিএম তৈরির যে দল ছিল, তিনি তার সদস্য ছিলেন বলে ওই ব্যক্তি দাবি করেছেন। তিনি এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলেছেন । যা সত্য বলে প্রমাণিত হলে ভারতীয় রাজনীতির পট-পরিবর্তন ঘটে যেতে পারে ।

তাঁর অভিযোগ, মহারাষ্ট্রের বিজেপি নেতা গোপীনাথ মুণ্ডে  ইভিএম হ্যাক করে বিজেপির জেতার কথা  জেনে গিয়েছিলেন। ফলে তাঁকে খুন হতে হয়। এই গোপীনাথ মুণ্ডে বিজেপির মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। লোকসভা ভোটে জিতে আসার দুই সপ্তাহের মধ্যে রাস্তায় দুর্ঘটনায় তাঁর মৃত্যু হয়। সৈয়দ সূজা তাঁর মৃত্যুকে খুন বলে দাবি করেছেন। এই সৈয়দ সূজা একজন মার্কিন সাইবার বিশেষজ্ঞ ।২০১৪ সালের আগে ভারতে যে ইভিএম তৈরি হয়েছে তাতে তিনি কাজ করেছেন বলে তাঁর দাবি। খুনের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নিয়েছেন সৈয়দ।এরআগে ভারতের ইলেকট্রনিক্স কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া লিমিটেডে তিনি কাজ করেছেন বলেও সৈয়দ জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত বলা যেতে পারে, কয়েকদিন আগে সৈয়দ সূজার উপর প্রাণঘাতী হামলা হয় । ফলে তিনি সাংবাদিক বৈঠকে  স্বশরীরে হাজির ছিলেন না  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন । তিনি স্পষ্ট আজ জানিয়েদিয়েছেন ,কীভাবে ইভিএম হ্যাক করে ভোটের ফল পাল্টে দেওয়া যায় সেসবও তিনি দেখাবেন বলে দাবি করেছেন। শুধু ইভিএম হ্যাকিংই নয়, এই গোটা ষড়যন্ত্রে বিজেপির সঙ্গে কারা জড়িত ছিলেন এবং এর ফলস্বরূপ কী কী ঘটনা ঘটেছে, তারও একটা লম্বা তালিকা পেশ করেছেন সৈয়দ সূজা। তিনি যা অভিযোগ করছেন তা প্রমাণ করে দেবেন বলেও দাবি করেছেন।

মার্কিন সাইবার বিশেষঞ্জ সৈয়দ সুজার পক্ষ থেকে আজকের সাংবাদিক সম্মেলনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। তবে কংগ্রেসের কপিল সিব্বল ছাড়া কেউই আসেননি।


শেয়ার করুন
  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment