কলকাতা 

বাম কংগ্রেস জোটের আসন সমঝোতা চূড়ান্ত, আগামীকাল কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকা!

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : সমস্ত জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাম কংগ্রেসের জোট চূড়ান্ত আকার নিয়েছে বলে জানা গেছে। কংগ্রেস এ রাজ্যে বারটি আসনে প্রার্থী দিতে পারে বলে সূত্রের খবর। এর মধ্যে কংগ্রেসের জেতা আসন বহরমপুরে প্রার্থী হচ্ছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী, মালদা দক্ষিণে প্রার্থী হচ্ছেন আবু হাসেম খান চৌধুরীর ছেলে ইশা খান চৌধুরী। গতবার মালদা দক্ষিণ থেকে এ বি এ গনি খান চৌধুরীর ভাই আবু হাসেম খান চৌধুরী জয়ী হয়েছিলেন। এবার শারীরিক অসুস্থতার কারণে আবু হাসেম খান চৌধুরী প্রার্থী হচ্ছেন না। তার জায়গায় প্রার্থী হচ্ছেন তার একমাত্র পুত্র ঈশা খান চৌধুরী।

মূলত বেশ কয়েক মাস ধরে গোপনে বাম কংগ্রেস এই রাজ্যে আসন সমঝোতা নিয়ে আলোচনা চালিয়ে আসছিল। কারণ দিন দিন এটাই স্পষ্ট হয়েছিল ইন্ডিয়া জোটের মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থাকলেও তিনি এই রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করবেন না। তাই এ আই সি সির পরোক্ষ মদতে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী গোপনে এই রাজ্যের সিপিএমের সঙ্গে আলাপ আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। গত ১০ই মার্চ ব্রিগেডের সভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেস একতরফা ভাবে ৪২ টা আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার পরেই কংগ্রেসের কাছে এটাই স্পষ্ট হয়ে যায় যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করতে রাজি নন।

Advertisement

তারপরে ই সমঝোতা সূত্র অনুসারে বারোটা আসনে রফা হয়ে যায় সিপিএমের সঙ্গে কংগ্রেসের। সমস্যা তৈরি হয় শরীক দলকে নিয়ে। বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে বরাবরই বামফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে সিপিআই দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে থাকে, বারাসাতে ফরওয়ার্ড ব্লক করে থাকে, এবং পুরুলিয়াতেও ফরওয়ার্ড ব্লক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে থাকে। কিন্তু সমস্যা তৈরি হয়েছে সি পি আই ও ফরওয়ার্ড ব্লক এর মধ্যে। এই দুই শরিক তাদের নির্দিষ্ট আসন ছাড়তে রাজি হয়নি ফলে জোটের সমঝতা সূত্র অনেকটাই পিছিয়ে যায়। বসিরহাট এবং বারাসাত নিয়ে জট কাটলেও শেষ পর্যন্ত পুরুলিয়া নিয়ে সমস্যা আবার তৈরি হয়।

পুরুলিয়া আসনটি ফরওয়ার্ড ব্লক কোনভাবেই ছাড়তে রাজি হচ্ছে না। রবিবার ১৭ই মার্চেও বামফ্রন্টের শরিক দল গুলোর মধ্যে ফের বৈঠক বসে সেখানেও নাকি পুরুলিয়া আসনটি নিয়ে অনড় অবস্থানে আছে ফরওয়ার্ড ব্লক। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে সিপিএমের পক্ষ থেকে পুরুলিয়া আসনটি কংগ্রেসকে ছাড়তে রাজি হয়েছে। ফলে এই আসনে সম্ভবত প্রাক্তন বিধায়ক নেপাল মাহাতো কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে দাঁড়াতে পারেন। অন্যদিকে দীপা দাশমুন্সি রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী নাও হতে পারেন। যদি দীপা প্রার্থী না হন তাহলে ওই কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন আলী ইমরান রামজ ওরফে ভিক্টর। তিনি একসময় ফরওয়ার্ড ব্লকের বিধায়ক ছিলেন সম্প্রতি কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন তরুন মুখ মনে করা হচ্ছে ভিক্টরকে প্রার্থী করা হলে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রটি কংগ্রেস পুনরুদ্ধার করতে পারে।

জোটের স্বার্থে মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রটি সিপিএমকে ছাড়া হয়েছে। এই কেন্দ্র থেকে সিপিএমের কে প্রার্থী হবে এখনো জানা না গেলেও তবে শোনা যাচ্ছে রাজ্য সম্পাদক মোঃ সেলিম নিজে প্রার্থী হতে পারেন। যদিও সিপিএম দলের পরম্পরা অনুসারে পার্টির সম্পাদক সাধারণত ভোটে দাঁড়ান না তবে ক্ষেত্রে মোঃ সেলিমের উপরেই বিষয়টি ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ