দেশ 

মুসলিম সংস্কৃতির ছোঁয়াচ থেকে বাঁচতে হলে অমিতের ‘ শাহ ‘ উপাধি এবং ‘গুজরাট ‘ শব্দের পরিবর্তন করা উচিত দাবি ইরফান হাবিবের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দেশজুড়ে এখন আর বিজেপি বা মোদীজি উন্নয়নের কথা বলছেন না । বরং দেশের ঐতিহাসিক প্রসিদ্ধ স্থানগুলির নাম পরিবর্তনের নিয়ে উঠে পড়ে লেগেছেন । আসলে উগ্র হিন্দুত্বকে আকঁড়ে ধরে নির্বাচনী বৈতরণী পার করতে চাইছেন অমিত-মোদী-যোগীরা । তাই এলাহাবাদ শহরের নাম বদলে প্রয়াগরাজ করা হয় , মোঘলসরাই স্টেশনের নাম বদলে দীনদয়াল উপাধ্যায়ের নামে করা হয়েছে । কয়েকদিন আগেই ফৈজাবাদের নাম পাল্টে অযোধ্যা করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ । বিজেপি নেতাদের নাম পাল্টানোর বিষয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদ এসেছে । বিশেষ করে ইতিহাসবিদদের কাছ থেকে । এবার সরাসরি অমিত শাহের নাম পদবী বদলের দাবি তুললেন প্রখ্যাত ঐতিহাসিক । তাঁর মতে শাহ পদবীটি ভারতীয় শব্দ নয় , এটা পারসি শব্দ সুতরাং মুসলিম সংস্কৃতির ছোঁয়াচ এড়াতে যাঁরা চাইছেন তাদের উচিত শাহ পদবী এবং গুজরাট শব্দটির পরিবর্তন করা ।

ইতিহাসবিদ ইরফান হাবিব  আরও বলেছেন ‘‘বিজেপির সবার আগে অমিত শাহের নাম পাল্টানোর কথা ভাবা উচিত। ওঁর পদবি ‘শাহ’-এর উৎস পারস্যে। এটা গুজরাটি নয়। এমনকি গুজরাট নামটাও এসেছে ‘গুর্জরত্র’ থেকে। এর শিকড়ও পারস্যে। এটাও পাল্টাক।’’

আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮৭ বছরের এমেরিটাস অধ্যাপকের কথায়, ‘‘এটা সঙ্ঘের হিন্দুত্ব নীতি। ঠিক যে ভাবে পাকিস্তানে যা কিছু অ-মুসলিম, তাকে মুছে ফেলা হয়।’’

ঐতিহাসিক ইরফান হাবিবের এই মন্তব্যের পর বিজেপি-র সভাপতি অমিত শাহ সত্যিই নাম পাল্টে ফেলে কিনা সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে দেশবাসী ।

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment