আন্তর্জাতিক 

বাংলাদেশের সাধারণ নির্বাচনে অংশ নিতে চায় বিরোধীরা , একইসঙ্গে নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি বিরোধীদের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বাংলাদেশের আসন্ন সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চলেছে সেদেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলের জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।ঢাকার প্রেসক্লাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তরফে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন, বিএনপি-র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম। একই সঙ্গে তিনি নির্বাচন কমিশনের কাছে তিনি দাবি করেন, “আমরা বর্তমান তফসিল বাতিল করে নির্বাচন এক মাস পিছিয়ে দিয়ে নতুন তফসিল ঘোষণার দাবি করছি। “

ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা কামাল হোসেনের পক্ষে লিখিত বিবৃতিতে ফখরুল বলেন, “নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই কঠিন। কিন্তু এরকম ভীষণ প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের অংশ হিসেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।” দাবী আদায়ের অঙ্গ হিসেবেই নির্বাচনে লড়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

পাশাপাশি বিএনপি-র পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ‘‘আওয়ামি লিগের সুবিধের কথা মাথায় রেখেই ভোটের দিনক্ষণ ঠিক করেছে নির্বাচন কমিশন। তড়িঘড়ি একাদশ জাতীয় সংসদের তফসিল ঘোষণা প্রমাণ করে সরকার আলোচনার মাধ্যমে কোনও সমঝোতার  পক্ষপাতী নয়। কোনও শর্তই সরকার পালন করেনি। এই পরিস্থিতিতে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অসম্ভব। তারপরও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

ঢাকার প্রেসক্লাবে আয়োজিত বিরোধী ঐক্যজোটের পক্ষ থেকে ডাকা সাংবাদিক  সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন, ফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সহ ফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা।

ঐক্যফ্রন্টের এই ঘোষণার ১৫ মিনিট আগে বিএনপি নেতৃত্বাধীন, জামাতে ইসলামী সহ ২০ দলীয় জোটও ভোটে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment