প্রচ্ছদ 

TMC: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই শীর্ষপদে, বাকী সবপদের অবলুপ্তি, ২০ জনের জাতীয় কর্মসমিতি, বাদ পড়লেন সৌগত-ডেরেক

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দলের শীর্ষ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাদ দিয়ে জাতীয়স্তরের সব পদের অবলুপ্তি ঘটানো হয়েছে । আজ কালিঘাটে জরুরি ঠৈকের পর এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন তৃণমূল দলের পক্ষে পার্থ চট্টোপাধ্যায় । আজকের বৈঠকে কার্যত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের অন্দরে নিজের অবিসংবাদী কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করলেন। একই সঙ্গে দলের কাজকর্ম দেখা শোনার করার জন্য ২০ জনের জাতীয় কর্ম সমিতি গঠন করা হয়েছে । কর্মসমিতির মাথায় রয়েছেন মমতা নিজে।

সূত্রের দাবি, বৈঠকে উপস্থিতি নেতারা সকলেই মমতার হাতে দলের দায়িত্ব পরিপূর্ণ ভাবে অর্পণ করেছেন। তাঁদের বক্তব্য, ‘মমতাই দলে শেষ কথা’। নেতাদের সাক্ষর সংবলিত সেই বার্তাও দলনেত্রীর কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সূত্রের আরও দাবি, বৈঠকে সকলের সামনেই মমতা ‘ঐক্যবদ্ধ’ হয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

তবে এই কোনও খবরই প্রকাশ্যে কোনও নেতা বলেননি। পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং ফিরহাদ হাকিম শুধু জাতীয় কর্মসমিতির সদস্যদের নামের তালিকা বৈঠকের শেষে পড়ে দিয়েছেন। ঘটনাচক্রে এই তালিকায় নাম নেই তৃণমূলের দুই সাংসদ সৌগত রায় এবং ডেরেক ও’ব্রায়েনের। এই দু’জনেই অভিষেকের ‘ঘনিষ্ঠ’ বলে দলের অন্দরে পরিচিত।

জাতীয় কর্মসমিতিতে যাঁরা ঠাঁই পেলেন : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়,অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়,যশবন্ত সিনহা অমিত মিত্র,পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সী, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, অরূপ বিশ্বাস, সুখেন্দু শেখর রায় , কাকলী ঘোষদস্তিদার,অসীমা পাত্র,অনুব্রত মন্ডল, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য,জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক,গৌতম দেব, ‍বুলুচিক বরাইক, মলয় ঘটক,রাজেশ ত্রিপাঠি । জাতীয় কর্মসমিতি থেকে বাদ পড়লেন সৌগত রায় ও ডেরেক ও’ব্রায়েন। একমাত্র অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া জাতীয় কর্মসমিতিতে তাঁর অনুগামী বলে খ্যাত কাউকে ঠাঁই দেওয়া হয়নি ।

রাজনৈতিক মহলের দাবি অভিষেক দলের সাধারণ সম্পাদক পদ ছাড়তে পারেন এই আশংকা থেকেই সব পদের অবলুপ্তি ঘটানো হয়েছে । কারণ অভিষেক হঠাৎ পদত্যাগ করলে দলকে অস্বস্তিতে পড়তে হতো ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ