জেলা 

উত্তরবঙ্গের জনপ্রিয় মুসলিম নেতা আবদুল করিম চৌধুরি বিজেপি-র জোটে যোগ দিলেন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : উত্তরবঙ্গের জনপ্রিয় মুসলিম নেতা আবদুল করিম চৌধুরি আজ বিজেপি-র সঙ্গে হাত মেলালেন। তিনি চা বাগান শ্রমিক আন্দোলনের নেতা হিসেবে খ্যাতিলাভ করেছিলেন। জ্যোতিবাবু থেকে শুরু করে অনেক বাম নেতা এই মুসলিম নেতাকে শ্রদ্ধার চোখে দেখতেন। তিনি এতটাই জনপ্রিয় ছিলেন যে একবার দুবার নয়, সাতবার কংগ্রেসের টিকিটে বিধায়ক হয়েছিলেন। দুবার তৃণমূলের বিধায়ক। তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকে না হলেও মাঝামাঝি সময়ে এই কংগ্রেস নেতা তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। আজ ২১ জুলাই শহীদ দিবসের দিনে বর্ষীয়ান এই নেতার বিজেপির সঙ্গী হওয়া দুভার্গ্যজনক বলে অনেকেই মনে করছেন । জনপ্রিয় এই নেতার তৃণমূল ত্যাগ মমতার কাছে যথেষ্ট অস্বস্তিকর।তিনি গত তৃণমূল মন্ত্রীসভার গ্রন্থাগার মন্ত্রী ছিলেন। ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে তিনি বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থীর কাছে হেরে গিয়েছিলেন। পরে যিনি করিম চৌধুরিকে ভোটে হারিয়েছিলেন তাঁকে তৃণমূল কংগ্রেস দলে নেওয়ার পরেই সংঘাত শুরু হয়। করিমবাবু প্রকাশ্যেই মন্তব্য করেন,তিনি এর বিরোধী। তা সত্তে ওই বিধায়ককে দলে নেওয়া হলে তিনি দলের সঙ্গে সর্ম্পক ছিন্ন করে বাংলা বিকাশ কংগ্রেস নামে রাজনৈতিক দল তৈরি করেন। সেই দল আজ বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং মুকুল রায়ে উপস্থিতি এনডিএ জোটে যোগ দিল।

আজ বালুরঘাটে বিজেপি-র এক সভায় প্রায় দশ হাজার কর্মী সহ বাম-কংগ্রেসের নেতারা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা কংগ্রেসের সভাপতি নীলাঞ্জন রায়ও এদিন বিজেপিতে কয়েক হাজার কর্মী-সমর্থক নিয়ে যোগ দিয়েছেন। এছাড়া সিপিএম নেতা নিরোদ দাসও বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। কংগ্রেসের দক্ষিন দিনাজপুরের জেলা সভাপতি নীলাঞ্জন রায় বলেন,কংগ্রেস বিধায়করা তৃণমূলের হাতে মার খাচ্ছেন। আর কংগ্রেস হাইকমান্ড তাদের সঙ্গে জোট করার চেষ্টা করছে। এই কারণে দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলাম।

 

 

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment