কলকাতা 

ভোট আসছে তাই নতুন করে সারদা-নারদা-রোজভ্যালী মামলার গতি বাড়াচ্ছে সিবিআই!

শেয়ার করুন
  • 31
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : শীত ঘুম ভেঙে সিবিআই এবার জেগে উঠেছে। আবার নতুন করে সারদা-নারদা-রোজভ্যালী মামলার গতি বৃদ্ধি করতে ছুটছে সিবিআই অফিসাররা। এখন তাদের টার্গেট সারদা তদন্তে গঠিত রাজ্য সরকারের তদন্ত কমিটি সিট। যত দোষ নন্দ ঘোষের মতই সিবিআই নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে সিটের উপর দায় চাপাচ্ছে। শোনা যাচ্ছে সিবিআইয়ের তদন্তকারী অফিসাররা সংস্থার স্পেশাল ডিরেক্টরকে বলেছেন, সারদা কর্ণধার সুদীপ্ত সেন যখন আত্মগোপন করেছিলেন তখন তিনি কোন কোন প্রভাবশালীর সঙ্গে কথা বলেছিলেন সেই বিষয়ে সিট কোন সাহায্য করেনি। কারণ ওই সময় তাঁর কাছে এবং তাঁর সঙ্গীদের কাছ থেকে ৫টি মোবাইল ফোন উদ্ধার হয়েছিল সেই ফোনগুলির কললিষ্ট সিবিআই সিটের কাছ থেকে চেয়েও পায়নি বলে অভিযোগ। তাদের দাবি বারবার তাগাদা করার ফলে শেষ পর্যন্ত তিনটি সিডি দেওয়া হয়। সেই সিডিগুলি খুলে কিছুই পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ। তাই এবার এই কললিষ্ট খুঁজতে হন্যে হয়ে ঘুরছে সিবিআই।

সিবিআই-র স্পেশাল ডিরেক্টর নির্দেশ দিয়েছেন, এ বছরের মধ্যেই সারদা কেসে ফাইনাল চার্জশিট দিতে হবে। মামলা শেষ করতে হবে। আর এটা করতে গিয়ে সিবিআইয়ের এই রাজ্যের আধিকারিকরা যেকোন সিদ্ধান্ত নিতে পারে যা সদর দপ্তর সঙ্গে সঙ্গে অনুমোদন করবে বলে স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা আশ্বাস দিয়েছেন। সংস্থার সর্বোচ্চ আধিকারিকের কাছ থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর রাজ্যের সিবিআই আধিকারিকরা জোর কদমে তদন্তের কাজ শুরু করেছে বলে জানা গেছে। বিশেষ সূত্রে জানা গেছে, এই মামলায় রাজ্যের বেশ কয়েক জন প্রভাবশালীকে ডাকতে চলেছে সিবিআই।

প্রশ্ন উঠেছে,সারদা চিটফান্ড মামলা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ২০১৪ সালে সিবিআই তদন্ত শুরু হয়েছিল। বিগত চার বছরে এই মামলার ফাইনাল চার্জশিট তৈরি করতে পারেনি সিবিআই। মাঝে মধ্যে দু একজন গ্রেপ্তার করে প্রচারে চলে এলেও সেই গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের অধিকাংশই জামিনে মুক্তি পেয়েছে। বিগত চার বছরে যে মামলায় প্রধান সূত্র কললিষ্ট সিবিআই খুঁজে বের করতে পারেনি,সেই মামলা কীভাবে মাত্র ৬ মাসের মধ্যে শেষ করবে? আসলে সামনে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির মূল টার্গেট এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার দল। সেই লক্ষ্যে কী আবার সিবিআইয়ের শীত ঘুম ভেঙে জেগে উঠা?


শেয়ার করুন
  • 31
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment