পঞ্চায়েত সংবাদ 

শেষ দিনের নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুললেন শিক্ষক নেতা একেএম ফারহাদ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেখ মিজানুর রহমানঃ

রাজ্যে ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী সোমবার।  আজ, শনিবার ছিল নির্বাচনী প্রচারের শেষ দিন। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশিকা অনুযায়ী আজ বিকাল ৫ টার মধ্যে নির্বাচনী প্রচার সম্পন্ন করেন সব রাজনৈতিক দল কিংবা নির্দলের প্রার্থীরা। শেষ দিনের নির্বাচনী প্রচারকে কেন্দ্র করে দলীয় কর্মীদের উৎসাহ ছিল তুঙ্গে।

অন্য প্রার্থীদের  মতো আজ দুপুরে নিজের এলাকায় নির্বাচনী প্রচার সারেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের ৩৬ নম্বর আসনের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তথা শিক্ষক নেতা একেএম ফারহাদ। দুপুর থেকেই কয়েক হাজার দলীয় কর্মী, সমর্থক থেকে শুরু করে এলাকার গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতির প্রার্থীদের নিয়ে এক বিশাল মিছিল করেন তিনি। ৩৬ নম্বর জেলা পরিষদ আসনের একাধিক জায়গায় ট্যাবলো নিয়ে পরিক্রমণ করেন এই শিক্ষক নেতা। সঙ্গে ছিলেন, স্থানীয় সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার ও দেগঙ্গার ব্লক সভাপতি মফিদুল হক সাহাজি। তবে অন্যদিনের তুলনায় এদিন তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উৎসাহ ছিল অনেকটাই বেশি। তাদের প্রিয় প্রার্থী একেএম ফারহাদকে কাছে পেয়ে প্রত্যেকেই আপ্লুত। রোড শো চলাকালীন উৎসুক কর্মীরা ফারহাদ সাহেবকে লক্ষ্য করে পুষ্প বৃষ্টি করতে থাকেন। অনেকেই আবার ফুলের মালা পরিয়ে দেন শিক্ষক নেতার গলায়। কর্মীরা নিজেরাই ‘জোড়া ফুল’ চিহ্নে ভোট দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেন। দলীয় কর্মীদের উৎসাহ দেখে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে রয়েছেন শিক্ষক নেতা। সেই সঙ্গে জয়ের ব্যাপারেও আশাবাদী তিনি। অন্যদিকে, প্রচারে দারুণ সাড়া পেয়ে খুশি হয়েছেন স্থানীয় সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদারও। তিনি বলেন, ‘ফারহাদ একজন কাজের মানুষ। মাদ্রাসা বোর্ড, হজ্ব কমিটি সহ একাধিক সরকারি পদে দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। সেই সব দায়িত্ত্ব সুনামের সঙ্গে পালন করছেন তিনি। এবার তৃণমল কংগ্রেস প্রার্থী ফারহাদকে আরও গুরু দায়িত্ব দিয়েছে। নির্বাচনে জয়ী হলে সেই দায়িত্বও তিনি দক্ষতার সঙ্গে পালন করবেন। এলাকার মানুষের জন্য কাজ করবেন তিনি। এলাকায় উন্নয়নের স্বার্থে সকলকেই তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীক জোড়া ফুল চিহ্নে ভোট দেওয়ার আবেদন জানান তিনি।

প্রচারের ফাঁকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি কাকলি ঘোষদস্তিদার ও একেএম ফারহাদ

অন্যদিকে,উত্তর ২৪ পরগনার ৩৬ নম্বর আসনটিতে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে বামেরা ক্ষমতায় রয়েছে। ২০১৩ সালে রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকার সময়েও এই আসনটি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছিল তারা। সেবার বাম প্রার্থী পাপড়ি দত্ত বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছিলেন। এবার এই আসনে বামেরা প্রার্থী করেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের বিরোধী দলনেতা ইমতিয়াজ হোসেন। তাই এই আসনে এবারও জিতার বিষয়ে আশাবাদী বামেরা। যদিও স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা বলেন, সেবার দলের মধ্যে প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ছিল। তাই হেরেছিল বর্তমান শাসকদল। কিন্তু এবার তৃণমূল নেতৃত্বের উদ্যোগে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মেটানো সম্ভব হয়েছে। তাই দীর্ঘ ৪০ বছর পর এবার এই আসনটিতে ঘাসফুল ফুটতে চলেছে। তবে আগামী বৃহস্পতিবারই নির্বাচনের ফল ঘোষাণা করা হবে।  কার ভাগ্যে কি রয়েছে সেদিনই তা স্পষ্ট হবে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment