জেলা 

বাতিল হওয়া ওবিসি সার্টিফিকেট নিয়ে আন্দোলনে নামছে এসডিপিআই

শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিনিধি : আজ ০৬.০৬.২৪ বৃহস্পতিবার এসডিপিআই-এর কেন্দ্রীয় রাজ্য পর্যবেক্ষক ইয়া মহিউদ্দিন-এর উপস্থিতিতে রাজ্য কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হল দলের সদর দফতরে। বৈঠকে দলের প্রতিষ্ঠা দিবস ২১ জুনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয় এবং ওবিসি সার্টিফিকেট বাতিল প্রসঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা হয়ে আন্দোলনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

ওবিসি সার্টিফিকেট নিয়ে উচ্চ আদালতের রায় বৈষম্যমূলক তা স্পষ্টভাবে বিশ্লেষন করেন রাজ্য সভাপতি তায়েদুল ইসলাম। এছাড়াও ওবিসি সার্টিফিকেট প্রসঙ্গে আদালতে পর্যবেক্ষণ চলাকালীন বিচারপতির করা প্রশ্ন— “যে সমস্ত জনজাতিকে ওবিসি তালিকাভুক্ত করা হল তারমধ্যে ৪২টি জনজাতির মধ্যে ৪১টি মুসলিম এবং একটি অমুসলিম কেন ? ২০১২ সালে ৩৫টি জনজাতির মধ্যে ৩৪টি মুসলিম এবং একটি অমুসলিম কেন?” বিচারপতির এই ভাষায় প্রশ্নের কারণ হচ্ছে আরএসএস-এর দৃষ্টিতে পর্যবেক্ষণ বলেন রাজ্য সভাপতি।

Advertisement

আদালত যে নিরপেক্ষ অবস্থায় নেই তার উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন— কয়েকদিন আগেই কলকাতা উচ্চ আদালতের বিচারপতি অভিজিৎ গাঙ্গুলি অগ্ৰিম অবসর নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়ে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আজ সাংসদ, আরও এক জন বিচারক অবসর গ্ৰহনের পর ঘোষণা করেছেন তিনি আরএসএস এর সদস্য ছিলেন। পর্যবেক্ষণের এই ভাষা পড়ে নিরপেক্ষ নাগরিকের মনে ধারণা জন্মাবে যে বর্তমান বিচারকদের মানসিক গড়ন আরএসএস এর ধাঁচে গড়া এবং হয়তো এঁরাও বিজেপিতে ভর্তি হবেন।

আমরা আশঙ্কা প্রকাশ করছি বিচারকদের নির্দেশনা মেনে কাজ করলেও কমিশন আগামী দিনে ৭৭ টি জনগোষ্ঠীকে ওবিসি হিসেবে ঘোষণা করার সুপারিশ করবে না। আসলে বাংলায় মুসলিমদের ওবিসি থেকে বঞ্চিত করার লক্ষ্যে একটি পদক্ষেপ এই রায়।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় আদালতের কাজ ছিল ফসলের মাঝ থেকে ঘাস চিহ্নিত করে তুলে ফেলা। আদালত পুরো ফসলই নষ্ট করে দিল। রাজ্য সরকার, আমলা, নেতাদের শাস্তি না দিয়ে যোগ্য শিক্ষকদেরও শাস্তি দিলেন। ওবিসি মামলাতেও রাজ্য সরকার ও আমলাদের শাস্তি না দিয়ে জনগণকে শাস্তি দেওয়া হল। রায় অনুযায়ী নিয়ম না মেনে রাজ্য সরকার যাদের ওবিসি তালিকা ভুক্ত করল তাদের তো কোন দোষ নেই। তাদের কেন শাস্তি দেওয়া হল?তাদের সার্টিফিকেট কেড়ে নেওয়া হল? শাস্তি তো দেওয়া দরকার রাজ্য সরকার ও আমলাদের। জনগণের প্রতি ন্যায়বিচার হবে বাতিল হওয়া সার্টিফিকেট ফিরিয়ে দেওয়া। এবং তা ফিরিয়ে আনার জন্য এসডিপিআই আন্দোলন করবে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ