আন্তর্জাতিক 

নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত জি-টুয়েন্টির বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন না পুতিন! নেপথ্যে কারণ কী?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আগামী ৯ এবং ১০ই সেপ্টেম্বর নয়া দিল্লিতে অনুষ্ঠিত জি২০ রাষ্ট্রগোষ্ঠীর শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেবেন না রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শুক্রবার ক্রেমলিনের তরফে এ কথা জানানো হয়েছে। এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকোভ বলেন, ‘‘সে সময় জরুরি সামরিক সক্রিয়তার কারণেই প্রেসিডেন্ট পুতিন শারীরিক ভাবে জি২০ শীর্ষ সম্মেলনে হাজির থাকতে পারবেন না।’’

যদিও আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে ইচ্ছা করেই পুতিন এইসব সম্মেলন এড়িয়ে চলছেন। রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের সময় থেকেই পুতিন রাশিয়ার বাইরে কোথাও যাচ্ছেন না। এমনকি চলতি সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে ব্রিকস (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন, দক্ষিণ আফ্রিকা) শীর্ষ সম্মেলনে গরহাজির ছিলেন পুতিন। তবে ‘সামরিক সক্রিয়তা’ নয়, ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধ, গণহত্যা এবং শিশুদের জোর করে স্থানান্তরিত করার অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি) পরোয়ানা জারি করার কারণে গ্রেফতারি এড়াতেই ব্রিকসে গরহাজির ছিলেন তিনি।

২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে আগের সোভিয়েত ইউনিয়নের সীমান্ত পেরোননি পুতিন। গত বছর নভেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে আয়োজিত জি২০ সম্মেলনে যাওয়ার পরিকল্পনাও বাতিল করেছিলেন তিনি। মাস কয়েক আগে জি২০-তে পুতিনের যোগদানের সম্ভাবনা সম্পর্কে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি বলেছিলেন, ‘‘সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। তবে এখনও এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’’ শেষ বার ২০১৯ সালে জাপানের ওসাকায় জি২০ শীর্ষ বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন পুতিন।

পুতিন কোথাও একটা আশঙ্কা প্রকাশ করছে যে তিনি যদি রাশিয়ার বাইরে যান তাহলে আন্তর্জাতিক আদালতের পক্ষ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হতে পারে কারণ ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক আদালত তাকে যুদ্ধ অপরাধ হিসেবে চিহ্নিত করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ