দেশ 

কর্ণাটকে জোটের সাফল্যে উজ্জীবিত কংগ্রেসের দাবি ২০১৯-এ মোদীর পতনের সংকেত স্পষ্ট

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদক : পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিশাল সাফল্য পেল জাতীয় কংগ্রেস কর্ণাটকের বিধানসভা-লোকসভা মিলিয়ে মোট পাঁচটি কেন্দ্রে উপনির্বাচন হয় । কয়েকদিন আগে । আজ তার ছিল ফল প্রকাশ । ফল প্রকাশের দেখা যাচ্ছে বিজেপি মুখ থুবড়ে পড়েছে । পাঁচটি কেন্দ্রের মধ্যে চারটিতেই জয়ী হয়েছে কংগ্রেস-জেডিএস ।

এই উপনির্বাচন ছিল মূলত কংগ্রেস জোট ও বিজেপির কাছে অ্যাসিড টেস্ট । আর ফলাফল বেরোতেই দেখা গেল একেবারে ধরাশায়ী বিজেপি। কংগ্রেস-জেডিএস জোটের জয়জয়কার।মোট পাঁচটি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি লোকসভা ও দুটি বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন ছিল। এর মধ্যে কংগ্রেস ও জেডিএস দুটি করে আসন জিতে নিয়েছে। কংগ্রেস জিতেছে বেলারি ও জামখণ্ডী আসন ও জেডিএস জিতেছে মান্ডিয়া ও রামনগর আসন। বিজেপি একমাত্র শিমোগা লোকসভা আসনে জিতেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে মাত্র কয়েক হাজার ভোটে ব্যবধানে শিমোগা লোকসভা কেন্দ্রটিতে জয়ী হয়েছে বিজেপি । গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রাপ্ত ভোটের তুলনায় অনেকটাই কম পেয়েছে । আর এতেই উল্লাস দেখা দিয়েছে কংগ্রেস শিবিরে । আসন্ন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস পক্ষে যদি এই জয়ের ধারাবাহিকতা বজায় থাকে তাহলে অমিত শাহ ও মোদীর কপালে চিন্তার ভাঁজ যে বাড়বে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না ।

এ প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা সরদার আমজাদ আলী বলেন, বিজেপি-র জনবিরোধী নীতিতে যে দেশের মানুষ অস্থির হয়ে উঠেছে কর্ণাটকের এই ফল তার প্রমাণ বহন করছে । সেখানে বিজেপি শুধু হারেনি , তার প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যাও অনেকটাই কমে গেছে । এটা ঠিকই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে একজোট যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা যদি আগামী লোকসভা নির্বাচনে ভালভাবে কার্যকরী করা যায় তাহলে মোদী সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা সম্ভব হবে । তিনি আরও বলেন, মানুষ উন্নয়নের মাপকাঠি ভোট দিয়ে থাকে ধর্মীয় জিগির তুলে সাময়িক সাফল্য পাওয়া যায় ঠিকই কিন্ত তা ধরে রাখা যায় না। কর্ণাটকের বার্তা স্পষ্ট ২০১৯-এ দিল্লি থেকে মোদীর বিদায় অবশ্যম্ভাবী ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment