দেশ 

চরম জলসঙ্কটের মুখে ভারত, জলহীন ৬০ কোটি ভারতবাসী, বলছে নীতি আয়োগ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি:

ভারতের ইতিহাসের ভয়াবহতম দিন, বলছে নীতি আয়োগ কমিটির রিপোর্ট ৷ সম্প্রতি নীতি আয়োগের জল সূচক বিষয়ক একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে ৷ সেই রিপোর্টের দেওয়া তথ্য যথেষ্ট উদ্বেগজনক ৷ সেখানে বলা হয়েছে, দেশের ৬০ কোটি মানুষের কাছে নিরাপদ জল নেই ৷ পরিশ্রুত জল না পেয়ে প্রতি বছর ভারতে মারা যাচ্ছেন ২ লক্ষ মানুষ ৷ রিপোর্ট বলছে, ২০৩০ সালের মধ্যে জলসঙ্কট দেশে মারাত্মক চেহারা নেবে ৷ জলসঙ্কটের ফলে ভারতের জিডিপি-র ৬ শতাংশ ক্ষতি হতে পারে।
এদিন কম্পোজিট জল ব্যবস্থা সূচক-এর এই রিপোর্টটি প্রকাশ করেন জলসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী নীতিন গড়কড়ি ৷ রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশের ২১টি বড় শহরের ভূগর্ভস্থ জল কমে আসছে ৷ ২০২০ সালের মধ্যে তা শেষ হয়ে যাবে ৷ ফলে চরম জলকষ্টের মধ্যে পড়বেন অন্তত ১০ কোটি মানুষ ৷ এখন দেশে ৭০ শতাংশ জলই কলুষিত ৷ ৭৫ শতাংশ ভারতীয়ের বাড়িতেই পানীয় জলের ব্যবস্থা নেই। ভারতের গ্রামগুলিতে ৮৪ শতাংশ বাড়িতেই নলের মাধ্যমে জল সরবরাহের ব্যবস্থা নেই। ফলে বিশ্বের ১২২টি দেশের মধ্যে জলমানের সূচকে ভারতের স্থান ১২০ ৷ এই তথ্য কিন্তু চিন্তার ভাঁজ বাড়াচ্ছে বিশেষজ্ঞদের কপালে ৷
কম্পোজিট জল ব্যবস্থার ভিত্তিতে সমস্ত রাজ্যগুলিকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে নীতি আয়োগের রিপোর্টে ৷ সেখানে ৯টি বোর্ড সেক্টর, ভূগর্ভস্থ জল, জল সংরক্ষণ, সেচ ব্যবস্থা, ফার্ম, পানীয় জল সরবরাহের ব্যবস্থা এবং পরিচালনা কাঠামোর মতো ২৮টি আলাদা আলাদা সূচকের ভিত্তিতে রাজ্যগুলিকে ভাগ করা হয়েছে ৷ রাজ্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে উন্নত স্থানে রয়েছে গুজরাত ৷ এরপর রয়েছে মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক এবং মহারাষ্ট্র ৷
উত্তরপূর্ব ভারত এবং অন্য হিমালয়ান রাজ্যগুলির মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে ত্রিপুরা ৷ এরপর হিমাচল প্রদেশ, সিকিম এবং অসম ৷
চরম উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে রয়েছে উত্তরপ্রদেশ, বিহার, রাজস্থান, হরিয়ানার মতো রাজ্যগুলি ৷


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment