কলকাতা 

মাদ্রাসা চাকরি প্রার্থীদের উপর পুলিশী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আজ পথে নামছে আওয়াজ , বুধবার নবান্ন অভিযানের ডাক সংখ্যালঘু নেতাদের

শেয়ার করুন
  • 274
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : শুক্রবার প্রেস ক্লাবের কাছে মেয়ো রোডে মাদ্রাসায় শিক্ষকপদ প্রার্থীদের অনশন-মঞ্চে পুলিশি হামলার অভিযোগ ওঠে । এর প্রতিবাদে বাংলার বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন গতকাল থেকেই সরব হয়েছে । এদিকে আজ শনিবার আওয়াজ নামে এক সংগঠন এই ঘটনার প্রতিবাদে ধিক্কার সভা করবে কলেজ স্কোয়ারে । প্রথমে ঠিক ছিল প্রেস ক্লাবের কাছে মোয়ো রোডেই এই সভা হবে । কিন্ত ওখানে ১৪৪ ধারা জারি করেছে পুলিশ । ফলে আর সভা সমাবেশ করা যাবে না । এজন্যই আওয়াজের সভা কলেজ স্কোয়ারে হবে বলে জানা গেছে । অন্যদিকে গতকালই এক সাংবাদিক বৈঠকে সংখ্যালঘু নেতা কামরুজ্জামান ঘোষণা করেছেন , আগামী বুধবার মাদ্রাসা চাকরি প্রার্থীদের উপর পুলিশী হামলার প্রতিবাদে নবান্ন অভিযান করবে । তিনি বলেন , যদি নবান্ন অভিযানে বাধা দেওয়া হয় তাহলে তারা নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে যাবেন । দোষী পুলিশ কর্মীদের শাস্তির দাবি জানাবে ।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণে জানা যাচ্ছে , শুক্রবার ভোরে সাধারণ পোশাকে আসেন ৬০-৭০ জন পুলিশকর্মী। তাঁদের পিছনে ছিল বড় পুলিশবাহিনী। সাধারণ পোশাকের পুলিশ এসেই শুয়ে থাকা কর্মপ্রার্থীদের হুমকি দিয়ে উঠে যেতে বলে। উঠতে না-চাওয়ায় লাথি মেরে তুলতে শুরু করে পুলিশ। পরে লাঠি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। কয়েক জন আহত হন। অনেকেই ভয় পেয়ে ধর্মতলায় এসে টিপু সুলতান মসজিদে আশ্রয় নেন।

চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ, মেয়ো রোডের অনশন-মঞ্চে হামলার পরে বেলা ৩টে নাগাদ টিপু সুলতান মসজিদেও আসে পুলিশ। যে-সব চাকরিপ্রার্থী পুলিশের ভয়ে সেখানে আশ্রয় নিয়েছিলেন, তাঁদের চলে যেতে বলে তারা। এক চাকরিপ্রার্থী বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী নিজেই মাদ্রাসামন্ত্রী। তবু পুলিশ দিয়ে এ ভাবে আমাদের পেটানো হল! কার নির্দেশে এমন মারধর? আমরা তো কেউ গুন্ডা নই।’’

যদিও পুলিশের দাবি, কাউকেই মারধর করা হয়নি। ওই এলাকায় ২৭ মার্চ থেকে ১৪৪ ধারা জারি আছে। তাই অনশন-মঞ্চ থেকে কর্মপ্রার্থীদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে মাত্র।

লালবাজার সূত্রের খবর, পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা বিকেলে মাসিক ক্রাইম বৈঠকে মেয়ো রোডে একই জায়গায় দু’বার ধর্না নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সেখানে আর যাতে কেউ বিক্ষোভ-ধর্নায় বসতে না-পারেন, সেই বিষয়ে স্থানীয় থানাকে সতর্ক করে দিয়েছেন সিপি।

মাদ্রাসার চাকরিপ্রার্থীদের অনশন-মঞ্চে পুলিশি হানার নিন্দা করেছে বামফ্রন্ট। সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রবীন দেব বলেন, ‘‘নির্বাচনের কারণ দেখিয়ে মাদ্রাসা, উচ্চ প্রাথমিক বা এসএসসি-র চাকরিপ্রার্থীদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে সরকার। তার উপরে গুন্ডা ও পুলিশ বাহিনী দিয়ে ওদের উপরে অত্যাচার চালাচ্ছে।”

 


শেয়ার করুন
  • 274
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment