কলকাতা 

নিজের ওয়ার্ডেই ব্রাত্য , তৃণমূলের হোলি মিলন অনুষ্ঠানেও নাম নেই মেয়রের , তাহলে কী সব্যসাচীর গেরুয়া শিবিরে যোগদান সময়ের অপেক্ষা ?

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : স্টার ক্যাম্পেনারের তালিকা থেকে আগেই বাদ গিয়েছিলেন । এবার বাদ গেলেন খোদ নিজের ওর্য়াড থেকে । যে ওর্য়াডে তিরি কাউন্সিলার সেই ওয়ার্ডে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অন্য জন । কে এই তৃণমূল নেতা যিনি নিজের এলাকাতেই দলের কাজ থেকে বঞ্চিত । উত্তর একটাই সব্যসাচী দত্ত । তিনি পদাধিকার হিসাবে বিধাননগর পুরসভার মেয়র এবং বিধায়ক । অবশ্য কয়েক দিন ধরেই ‘বিতর্কিত’ মন্তব্যের জেরে দলের কুনজরে পড়েছিলেন বিধাননগর পুরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্ত। শনিবার দলের নির্বাচনী কমিটির বৈঠকেও তাঁর নিজের ওয়ার্ডের ভোটের কাজ পরিচালনার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হল অন্য তৃণমূল কর্মীর হাতে।

ওই বৈঠকের পর রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু বলেন, “তিনি (সব্যসাচী) একজন কাউন্সিলার, মেয়র এবং বিধায়ক। তিনি ব্যস্ত মানুষ। ফলে তাঁকে আর ব্যস্ত করতে চাইছে না দল”।

এ দিনের বৈঠকে সব্যসাচীর নিজস্ব ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সুপ্রিয় মজুমদারকে।

এখানেই শেষ নয় , আরও জানা গেছে, আগামী রবিবার সল্টলেকের বিএফ ব্লকে ‘হোলি মিলন’ নামে একটি অনুষ্ঠান রয়েছে। যেখানে উপস্থিত থাকবেন কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। ওই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে ফিরহাদ-সহ অন্যান্যদের নাম ছাপা হলেও নেই বিধাননগরের মেয়রের নাম। এমনকী, তাঁকে এখনও আমন্ত্রণও জানানো হয়নি।

‘হোলি মিলন’ প্রসঙ্গে সব্যসাচী বলেন, “আমাকে কেই কিছু বলেননি। কোথায়, কী অনুষ্ঠান রয়েছে এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না”। একই সঙ্গে নিজের ওয়ার্ডে অন্য তৃণমূল নেতাকে দায়িত্ব দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “দলের অনেক ভালো কর্মী রয়েছেন। দল যাঁকে যোগ্য মনে করবে, তাঁকেই দায়িত্ব দেবে”।

এ ব্যাপারে বারাসতের তৃণমূল প্রার্থী কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন, “যিনি কিছু করেন না, মানুষ তাঁকে মিস করেন না। আর যিনি সমস্ত কাজ করেন, তাঁকে মানুষ মিস করেন। যিনি মানুষের পাশে থাকেন না, মানুষের কোনো কাজ করেন না, তাঁকে রাখার কী প্রয়োজন”।

রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক কোনো রকমের রাখঢাক না-করেই জানান, “দল থেকে কাউকে জোর করে তাড়ানো যায় না। আমরা কাউকে দল থেকে তাড়াই না। সে যতক্ষণ দলে রয়েছে, ততক্ষণ দলেরই এক জন সৈনিক। কিন্তু যার দরকার সে দল ছেড়ে চলে গিয়েছে”।

 

 

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment