জেলা 

তৃণমূল করার অপরাধে মহিলাকে মারধর সন্দেশখালিতে, বিজেপির দিকে

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : তৃণমূল করার অপরাধে এক মহিলাকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে অন্তর্গত সন্দেশখালি।

সন্দেশখালির খুলনার বাসিন্দা এক মহিলাকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগে উত্তপ্ত উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালি। মহিলার অভিযোগ, তিনি তৃণমূলকে সমর্থন করেন। বিজেপির লোকজন তাঁকে একাধিক বার তৃণমূল না করার হুমকি দিয়েছিলেন। কিন্তু মহিলা তাঁদের কথায় পাত্তা না দিয়ে তৃণমূলকেই সমর্থন করে যান। এর পর ওই মহিলাকে লাঠি দিয়ে রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। আহত অবস্থায় তাঁকে সন্দেশখালি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তী কালে খুলনা হাসপাতালেও তাঁর চিকিৎসা হয়। আপাতত তিনি স্থিতিশীল রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

বিজেপির হাতে নিগৃহীতা ওই মহিলা বলেন, ‘‘আমরা তৃণমূল করি, ওরা বিজেপি করে। আমরা কেন তৃণমূল করছি, সেই হিংসায় আমাকে মারধর করল। বিজেপির জনক মণ্ডল, অপর্ণা মণ্ডল আমাকে লাঠি দিয়ে মেরে ফেলে দেয়। তার পর লাথি, ঘুষি, চড় মারতে থাকে। মোট পাঁচ জন আমাকে মেরেছে। ওরা সবাই বিজেপি করে। কিন্তু আমরা বিজেপি করব না, তৃণমূলই করব।’’ ঘটনায় অভিযুক্ত বিজেপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে সন্দেশখালি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও এই ঘটনায় একজনকেও এখনও গ্রেফতার বা আটক করতে পারেনি পুলিশ।

বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি তাপস ঘোষ অবশ্য এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির যোগ নেই বলে দাবি করেছেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ