কলকাতা 

প্রাথমিক শিক্ষক পদে চাকরি করছেন বাংলাদেশের নাগরিক! বেতন বন্ধের নির্দেশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের বেনজির দুর্নীতি আবার সামনে এলো এবার বাংলাদেশের নাগরিককে প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি দেওয়া হয়েছে বলে কলকাতা হাইকোর্টে অভিযোগ করা হয়েছে। তথ্যপ্রমাণ পেশ করার পর কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ওই বাংলাদেশি শিক্ষকের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন । অভিযোগে বলা হয়েছে জাল নথি পেশ করে অভিযুক্ত শিক্ষক চাকরি পেয়েছেন অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম উৎপল মন্ডল।

মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত মামলায় প্রাথমিকে কর্মরত ওই বিতর্কিত শিক্ষকের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। বেতন বন্ধের পাশাপাশি, অভিযুক্ত ওই শিক্ষক যাতে স্কুলে ঢুকতে না পারেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার স্কুল পরিদর্শককে (ডিআই) তাও নিশ্চিত করতে বলেছে আদালত। একই সঙ্গে, আগামী ৪ জুলাই মামলার পরবর্তী শুনানিতে অভিযুক্ত ওই শিক্ষক উৎপল মণ্ডলের আদালতে হাজিরা নিশ্চিত করতে দক্ষিণ দিনাজপুরের পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। এমনকি, এই মামলায় জেলা শাসককে পক্ষভুক্ত করে এবিষয়ে তাঁর কাছে রিপোর্ট তলব করেছে আদালত।

Advertisement

মামলাকারী বিমল সরকারের আইনজীবী সৌমেন দত্তের অভিযোগ, “তাঁর মক্কেলের যোগ্যতা থাকার সত্বেও তিনি নিয়োগ পাননি। অবশ্য সেখানে চাকরি করছেন একজন বাংলাদেশী। তথ্য জানার আইনে তিনি জানতে পেরেছেন বিতর্কিত ওই শিক্ষক উৎপল মণ্ডল বাংলাদেশেই পড়াশোনা করেছেন। ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ‘এইট’ পাশ করে এদেশে এসেছেন। পরে দক্ষিণ দিনাজপুরের একটি স্কুল থেকে জালিয়াতি করে মাধ্যমিক পাশের জাল শংসাপত্র জোগাড় করেন।”

ঘটনায় সিবিআই তদন্তের আবেদন জানিয়ে আইনজীবীর দাবি, “অভিযুক্ত উৎপল মণ্ডল বর্তমানে জেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন।” তার এই নিয়োগ অবৈধ বলেও মামলায় দাবি করেছেন মামলা কারি। তবে রাজ্যের দাবি, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার আগে যাতে আদালত তাঁর বিরুদ্ধে কোনও কড়া পদক্ষেপ না নেয়।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ