জেলা 

মমতা-অভিষেক নির্দেশ দিলে যুবরা’ই লাল বাহিনীকে জব্দ করতে প্রস্তুত, বারাসাতে প্রতিবাদ সভায় বললেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

শেয়ার করুন

ইসরাফিল বৈদ্য, বারাসাত : মঙ্গলবার পূর্ব নির্ধারিত সূচী মোতাবেক উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা পরিষদে ডেপুটেশন দিতে হাজির হয় সিপিএম এর শাখা সংগঠন।ডেপুটেশনের নামে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে জেলা পরিষদের সম্পত্তি ব্যাপকহারে ভাঙচুর করে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। বলাবাহুল্য জেলা পরিষদের মূল ভবনের সামনে সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য বিশ্ব বাংলা লোগো ও বিভিন্ন ধরনের ফুলের গাছে ব্যাপকহারে ক্ষয়ক্ষতি করে।

Advertisement:

Advertisement

পাশাপাশি ভবনের মূল ফটকও ভাঙচুর করে। বুধবার উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে জেলা পরিষদ ভবনের সম্মুখে বিশাল ধিক্কার ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।উক্ত প্রতিবাদ কর্মসূচীতে সাংসদ সৌগত রায় বলেন ডেপুটেশনের নামে যেভাবে সরকারি সম্পত্তি ব্যাপকহারে নষ্ট করলো এর জন্য পুলিশ প্রশাসনকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানায়। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এই ধরনের নোংরা রাজনীতি বিরোধীরা করলে তৃণমূল কংগ্রেস হাত গুটিয়ে বসে না থাকার হুসিয়ারি দেন।অবিভক্ত উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা বনমন্ত্রী শ্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ঝাঁঝালো বক্তব্যে বিরোধী দল কে আক্রমণ করে।

তিনি বলেন শান্তিপূর্ণ বাংলায় অশান্তি সৃষ্টি করতে চেষ্টা করলে তৃণমূল কংগ্রেস যুবরাই সুদে আসলে বুঝে নিতে পারে,যদি সর্বোচ্চ নেতৃত্ব নির্দেশ দেয়।বিরোধীদের হুসিয়ারির সুরে শান্তি সম্প্রীতি বজায় রেখে উন্নয়নের জায়গায় অশান্তি কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। মন্ত্রী পার্থ ভৌমিকের কথায় উঠে আসে শূন্য পাওয়া দলের ফুটানি ফুটেজ খাওয়ার জন্য।এই ধরনের জঘন্য কাজ বাংলার সরকার কঠোর হাতে দমন করবে। বিধায়ক শ্রী তাপস রায়ের কথায় উন্নয়ন কে স্তব্ধ করতে এই ধরনের চক্রান্ত বর্জন করবে শান্তিপ্রিয় বাংলার মানুষ। জেলা পরিষদের দলনেতা নারায়ন গোস্বামী বলেন এইধরনের অশোভনীয় কাজ মা মাটি মানুষের সরকার মেনে নেয় না।রাম বাম খাম এক হয়ে যে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি করেছে তাতে জেলা পরিষদের সম্মান হানি হয়েছে।তাই প্রশাসনের আধিকারিকদের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্ৰহনের আর্জি জানায়।

মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলা পরিষদে নিজের দপ্তর বন ও ভূমি বিভাগে কর্মরত থাকা অবস্থায় কর্মাধ্যক্ষ একেএম ফারহাদ লক্ষ্য করেন বাইরে ব্যাপকহারে হাঙ্গামা হচ্ছে। বলাবাহুল্য বুধবার মাদ্রাসা টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের রাজ্য সভাপতি হিসাবে শিক্ষকদের নিয়ে বড়ো মিছিল সহযোগে রোগ দিতে দেখা যায় ফারহাদ কে।ফারহাদ তীব্র ধিক্কার জানায় সিপিএম এর হার্মাদ বাহিনীকে। তিনি বলেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় যেভাবে রাজ্যজুড়ে উন্নয়নের জোয়ার বইছে তাতে আতঙ্কিত হয়ে রাম,বাম,খাম এক হয়ে উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা পরিষদ আক্রমণ করলো।

পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের কাছে তিনি আর্জি জানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা। বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিনা মন্ডল, উপস্থিত ছিলেন অনান্য কর্মাধ্যক্ষ, জেলা পরিষদের সদস্য, সদস্যা প্রমুখ।সভাটি পরিচালনা করেন যুব সভাপতি অভিজিৎ নন্দী।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ