প্রচ্ছদ 

আদালতের নির্দেশে স্বামীর চাকরি যাওয়ার তিনদিন পর আত্মহত্যা স্ত্রীর, বলাগড়ের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : হুগলির বলাগড়ের সিজা-কামালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গৌরনই গ্রামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। জানা গেছে সম্প্রতি স্কুল সার্ভিস কমিশন কর্তৃ ক কর্তৃক নিয়োগকৃত গ্রুপ ডি কর্মীর হিসাবে ঐ গৃহবধুর স্বামী কর্মরত ছিল স্থানীয় এক স্কুলে। কিন্তু আদালতের নির্দেশে তার চাকরি চলে যায়। তারপর থেকেই গৃহবধূ সহ পরিবারের সকলের মধ্যে একটি অস্থিরতা দানা বাঁধে তা থেকেই ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে বলে এলাকার মানুষের দাবি।পুলিশ তরুণীর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে ইমামবাড়া সদর হাসপাতালে। একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে শুরু হয়েছে তদন্ত।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার গৌরনই গ্রামের বাসিন্দা প্রতাপ ঘোষের স্ত্রী মৌমিতা (৩২)-র ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় ঘর থেকে। প্রতাপ বলেন, ‘‘আমি মাঠে গিয়েছিলাম। আমার সঙ্গে স্ত্রীর কোনও অশান্তি হয়নি। সকাল ৯টা নাগাদ বাড়ি ফিরে দেখলাম এই অবস্থা।’’ সুচাঁদ ঘোষ নামে প্রতাপের এক প্রতিবেশী বলেন, ‘‘চাকরি যাওয়ার জন্য দুশ্চিন্তা ছিল পরিবারে। তাই এমন ঘটনা ঘটেছে বলে মনে হয়।’’

Advertisement

গৌরনই গ্রামের বাসিন্দা প্রতাপ ২০১৮ সালে গ্রুপ ডি পদে চাকরি পেয়েছিলেন নিকটবর্তী ডুমুরদহ ধ্রুবানন্দ হাই স্কুলে। সম্প্রতি হাই কোর্টের নির্দেশে যে গ্রুপ ডি কর্মচারীদের চাকরি বাতিল হয় সেই তালিকার নাম রয়েছে প্রতাপের। মৌমিতা ভান্ডারটিকুরির একটি বেসরকারি কলেজে ডিএলএড পড়ছিলেন।

এই ঘটনাকে ঘিরে রাজনৈতিক চাপান-উতোর শুরু হয়েছে তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে। বিজেপির হুগলী সাংগঠনিক জেলার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ সাউয়ের অভিযোগ, ‘‘এই মৃত্যুর জন্য তৃণমূল দায়ী। কারণ তারা শুধু চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা করেনি, যাঁরা টাকা দিয়ে চাকরি পেয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গেও প্রতারণা করেছে।’’

বিষয়টি নিয়ে সিজা কামালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান তথা স্থানীয় তৃণমূল নেতা অরিজিৎ দাস বলেন, ‘‘বলাগড়ে কয়েকটি বাড়িতে ইডির তল্লাশি হয়েছে। তাই চাকরিতে দুর্নীতির প্রসঙ্গ উঠবেই। কিন্তু চাকরি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আদালত। বিষয়টিও বিচারাধীন। বিরোধীরা ঘোলা জলে মাছ ধরার চেষ্টা করছে।’’ তাঁর মতে, ‘‘এর আগেও উনি ২-৩ বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। সেটা আমরা জানি। এ নিয়ে আমরা পঞ্চায়েতের তরফে বৈঠকেও বসেছিলাম ওঁর বাড়িতে।’’


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ