আন্তর্জাতিক কলকাতা 

দুই বাংলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হল মুজিবর রহমানের জন্ম-শতবর্ষ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বাঙালি জাতীয়তাবাদের অন্যতম জনক মুজিবর রহমানের জন্ম-শতবর্ষ অনুষ্ঠান মহাসমারোহে পালনের উদ্যোগ নিয়েছিল বাংলাদেশের শেখ হাসিনা সরকার। ভারতের প্রধানমন্ত্রী সহ বিশ্বের অনেক রাষ্ট্রনায়ককে এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রন জানানো হয়েছিল । কিন্তু বিশ্বজুড়ে করোনা আতঙ্কে সে সবই বাতিল করতে হয়েছে। আপাতত সীমিত আয়োজনে মুজিব বর্ষের সূচনার পরিকল্পনা করেছে শেখ হাসিনার সরকার। তবে তাতে যাতে প্রাণের ছোঁয়া থাকে, সেটাও দেখা হচ্ছে। আজ এই অনুষ্ঠানে হাজির থাকতে না পারলেও ভিডিয়ো বার্তা পাঠালেন নরেন্দ্র মোদী।

নতুন কর্মসূচি অনুসারে রাত আটটায় মুজিবের জন্মক্ষণে ঢাকার সোহরাবর্দি উদ্যানে আতশবাজি পুড়িয়ে শতবার্ষিকীর সূচনা করা হয়। জনসমাবেশ এড়িয়ে সরকারি-বেসরকারি সব টিভি চ্যানেল ও অনলাইন মিডিয়ায় এই অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। তবে মঙ্গলবার সকালেই ঢাকায় ৩২ নং ধানমন্ডি রোডে শেখ মুজিবের বাসভবনে গিয়ে শ্রদ্ধা জানান তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরে একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যান হাসিনা। বাবার কবরে জানান শ্রদ্ধা। ভোর শুরু হবে তোপধ্বনিতে। পতাকা তোলা হবে সব সরকারি দফতরে। এর পরে সারা বছর ধরে চলবে নানা অনুষ্ঠান। সংক্রমণের প্রভাব কমলে ফের আড়ম্বরে অনুষ্ঠান করা যাবে— আপাতত সেই আশাতেই সকলে।উৎসবের মধ্যেই করোনা সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশের সব স্কুল ও প্রেক্ষাগৃহ ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে সরকার।

এদিকে কলকাতায় বাংলাদেশ উপদুতাবাসে মুজিব শতবর্ষ অনুষ্ঠান পালন করা হয় । আবার রাজ্য বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শেখ মুজিবর রহমানের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান । বিধানসভার সদস্যরাও মুজিবের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন । বেকার হস্টোলে মুজিবর রহমানের মূর্তি আজ সকালেই মাল্যদান করা হয় । এক কথায় মুজিবর রহমানের জন্ম-শতবর্ষে দুই বাংলায় শ্রদ্ধা নিবেদন করল । করোনা ভাইরাসের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে বাঙালি জাতীয়তাবাদের পুরোধা মুজিবর রহমানের প্রতি বাংলার জনরবও বিশেষ শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment