দেশ 

রাম রাজ্যের স্বপ্ন দেখেই শেষ, কর ছাড়ের কোন ঘোষণা নেই, অন্তবর্তী বাজেটেও দিশাহীন মোদি সরকার!

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাম রাজ্যের স্বপ্ন দেখিয়ে অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করলেন দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। যে আশা এবং আকাঙ্ক্ষা দেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে ছিল যে এবারের বাজেট লোকসভা ভোটের জন্য সাধারণ মানুষের বাজেট হয়ে দাঁড়াবে কিন্তু সাধারণ মানুষের বাজেট হওয়া তো দুরস্ত সামান্য আয়কর সীমাও বাড়াতে পারেনি বর্তমান বিজেপি সরকার।

সাধারণত ভোটের আগেই মানুষকে আশ্বাস দেওয়ার জন্য বাজেটে কিছু প্রস্তাব রাখা হয়। কিন্তু এবার অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সীতারামন বাজেট বক্তৃতায় বললেন, ‘‘ভোটের বছর বলেই এ বিষয়ে আমরা কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করলাম না।’’ যদিও এর আগে ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের আগে অন্তর্বর্তী বাজেটে বেড়েছিল আয়কর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা। নির্মলা জানান, আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত যে কর কাঠামো বহাল রয়েছে, পরবর্তী বাজেট পর্যন্ত তার সময়সীমা বৃদ্ধি করা হল।

Advertisement

পুরনো কর কাঠামোয় ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা আয়ের উপর থেকে সর্বনিম্ন হারে আয়কর প্রযোজ্য হয়। অন্তর্বর্তী বাজেটে তা ৫০,০০০ টাকা বাড়িয়ে ৩ লক্ষ করা হতে পারে বলে জল্পনা ছিল। এর ফলে বছরে ১২৫০ টাকা সাশ্রয় হত। সে ক্ষেত্রে ৫.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ে কর দিতে হত না। একই সঙ্গে পুরনো এবং নতুন, দুই কর কাঠামোতেই ‘স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন’-এর পরিমাণ ৫০,০০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৬০,০০০ টাকা করা হতে পারে বলেও সরকারি সূত্রে ‘খবর’ মিলেছিল। কিন্ত তা হল না।

মাঝখানে লাভের মধ্যে লাভ হয়েছে রাম রাজ্য গড়ে তোলার স্বপ্ন । নির্মলা সীতারামন জানিয়েছেন মন্দির ভিত্তিক পর্যটন শিল্প গড়ে তোলা হবে। যা কথায় এক নয় ইতিহাস লিখতে চলেছে বর্তমান মোদি সরকার।

সাধারণত লোকসভা ভোটের বছরে পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ হয় নির্বাচনের পরে, নতুন সরকার গঠন হলে। সরকারি খরচ ও কাজে যাতে বাধা না আসে, তার জন্য নির্বাচনের আগে ‘ভোট-অন-অ্যাকাউন্ট’ বা অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ হয়। অন্তর্বর্তী বাজেটে সাধারণ ভাবে বড় কোনও ঘোষণা হয় না। কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের আগেও অন্তর্বর্তী বাজেটে আয়কর ছাড়ের সীমা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ে কাউকেই আয়কর দিতে হবে না বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশে দু’টি আয়কর কাঠামো চালু রয়েছে। একটি পুরনো। অন্যটি নতুন। নতুন কর কাঠামোয় ঊর্ধ্বসীমা ৭ লক্ষ টাকা। সেখানে করের হার কম, কিন্তু কোনও কর ছাড় মেলে না। পুরনোয় এখনও নানা ছাড় চালু রয়েছে।

সাধারণত যে কোন নির্বাচনের আগে রাজ্য সরকার কিংবা কেন্দ্র সরকার অন্তবর্তী বাজেটে মোটামুটি একটা দিশা সাধারণ মানুষের কাছে রেখে দেয়। এ থেকে সাধারণ মানুষের কাছে স্পষ্ট হয়ে যায়, নির্বাচনের পর সরকার আমাদের কি কি দিতে পারে কিন্তু মোদি সরকার তার অন্তবর্তী বাজেটে সেই দিশা দেখাতে পারেনি। সাধারণ মানুষের আশঙ্কা বিপুল গরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার পর মোদি সরকার সাধারণ মানুষকে সুবিধে পাইয়ে দেওয়ার মত কোন প্রকল্প আর আনবে না আজকের বাজেট থেকে তা স্পষ্ট হয়ে ধরা পড়েছে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ