কলকাতা 

রাজভবনের চমক! প্রেসিডেন্সির পড়ুয়াদের জন্য মাসে একদিন ভোজের ব্যবস্থা করছেন ঘোষণা রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : বৃহস্পতিবার দুপুর বেলা রাজ্যপাল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনে যান সেখানে গিয়ে অধ্যাপকদের সঙ্গে বৈঠক করার পর ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে মিলিত হন। রাজ্যপালের সফর চলাকালীন সময়ে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা আন্দোলনে শামিল হয়েছিল তাদের দাবি ছিল অবিলম্বে ছাত্র সংসদ নির্বাচন করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরি কাঠামো উন্নতি করতে হবে হোস্টেলের উন্নতি করতে হবে হোস্টেলের খাবারের মানের উন্নতি করতে হবে। রাজ্যপাল পড়ুয়াদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে পড়ুয়ারা পাল্টা স্মারকলিপি তুলে দেন রাজ্যপালের হাতে।

Advertisement:

Advertisement

রাজ্যপাল এই স্মারকলিপি পাওয়ার পর ছাত্র-ছাত্রীদের আশ্বস্ত করে বলেন আগামী পয়লা বৈশাখ উদযাপন করা হবে রাজভবনের পক্ষ থেকে। এই অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে যদি তারা যান ভালো। যদি তারা না যান তাহলে তাদের হোস্টেলে খাবার পৌঁছে যাবে। শুধু তাই নয় মাসে একদিন একবেলা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের জন্য হোস্টেলে খাবারের ব্যবস্থা করবে রাজভবন বলে রাজ্যপাল প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। রাজ্যপালের এই প্রতিশ্রুতিতে অবশ্য ছাত্রছাত্রীরা খুশি হননি তারা একেই মিড মিল বলে বর্ণনা করেছেন। পড়ুয়াদের দাবি আমরা সমাধান চেয়েছিলাম রাজ্যপাল এক মাসের মধ্যে মাত্র একবেলা খাবারের ব্যবস্থা করেছেন তাহলে অন্য দিনগুলো কি আমরা না খেয়ে থাকবো? প্রশ্ন তুলেছেন প্রেসিডেন্সির মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরা।

যাইহোক রাজ্যপালের আজকের এই প্রস্তাব ঘিরে রাজ্য জুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে রাজভবন থেকে একটি বিশেষ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য মাসে একদিন খাবারের ব্যবস্থা করা হবে। এটা অভিনব উদ্যোগ বলে শিক্ষা মহল মনে করছে। তবে বর্তমান রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস এখন রীতিমতো দিনের পর দিন চমক সৃষ্টি করে চলেছেন।

বিশেষ করে রাজ্যপাল যেভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে যাচ্ছেন এবং শিক্ষার পরিবেশ নিয়ে আলোচনা করছেন তাতে শিক্ষা প্রেমী মানুষরা খুশি। বাংলার মানুষ এরকমই রাজ্যপাল চেয়েছিলেন নিজের সরকারের সমালোচনা করে নয় বরং নিজে গিয়ে তদারকি করে প্রশাসনিক ব্যবস্থা থেকে শুরু করে শিক্ষা ব্যবস্থার উপরে নিজের আধিপত্যকে কায়েম করতে চলেছেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস।

 

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ