দেশ 

নিয়ম ভেঙ্গে সরকারি জমি দখল করার অভিযোগে দিল্লির বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত চাইলেন দলের বিধায়কই

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক: ভাগাড়ের জমি দখল করে বেসরকারি লাইব্রেরী করার অভিযোগ উঠল দিল্লির সাংসদ ও প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে। একইসঙ্গে সরকারি জমি দখল করে বেসরকারিভাবে লঙ্গরখানা পরিচালনা করার অভিযোগ উঠেছে খোদ বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে। আর এই অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির দিল্লির বিধায়ক। গৌতম গম্ভীরের লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিজেপি বিধায়ক অনিল বাজপেয়ী রীতিমতো কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত চেয়েছেন। এর ফলে দিল্লির রাজনীতিতে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গেছে।

ভারতীয় দলের প্রাক্তন তারকার বিরুদ্ধে অভিযোগ, দিল্লির কারকারডুমার কাছে তিনি যে লাইব্রেরিটি তৈরি করেছেন, সেটি সরকারি জমিতে তৈরি করা হয়েছে। ওই জমি আসলে দিল্লি পুরনিগমের। জমিটিতে সরকারি ডাম্পিং গ্রাউন্ড অর্থাৎ ভাগাড় তৈরি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পুরনিগমের (Delhi MCD) উপর প্রভাব খাটিয়ে গম্ভীর এই জমি হাতিয়েছেন। একইভাবে তাঁর লোকসভা (Lok Sabha) কেন্দ্রে গম্ভীর বেসরকারি মালিকানায় যে ৪টি লঙ্গরখানা অর্থাৎ জন রসুই চালান, সেগুলিও বেআইনিভাবে সরকারি জমি হাতিয়ে তৈরি করা। এবং সেই জমির মালিকানা গিয়েছে বেসরকারি হাতে। এই নিয়ে গম্ভীরের বিরুদ্ধে একটি মামলাও হয়েছে।

যদিও গম্ভীর ঘনিষ্ঠরা বলছেন, প্রাক্তন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে আনা এই সব অভিযোগ ভ্রান্ত। অনিল বাজপেয়ী (Anil Bajpai) একটি নন-ইস্যুকে ইস্যু করার চেষ্টা করছেন। গম্ভীরের প্রতি ব্যক্তিগত ক্ষোভ থেকেই এই ধরনের অভিযোগ করা হচ্ছে। গম্ভীর ঘনিষ্ঠদের সাফাই, এই জমিগুলি আসলে অব্যবহৃত, সেখানে লঙ্গড় এবং লাইব্রেরি বানিয়ে মানুষেরই কাজ করছেন সাংসদ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ