জেলা 

‘‘লাল হঠেছে, কিন্তু রাজ্য বাঁচেনি,আজ রাজ্যকে বাঁচাতে লাল ঝান্ডা আবার রাস্তায় নেমেছে’’ বর্ধমানে সিপিএমের আইন অমান্য কর্মসূচিতে বললেন মুহাম্মদ সেলিম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আজ বুধবার ৩১ আগষ্ট খাদ্য আন্দোলনের স্মরণে বর্ধমান শহরে সিপিএমের ডাকে অমান্য কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয় । এই কর্মসূচিকে ঘিরে দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে সঙ্ঘাত হয় এবং রণক্ষেত্র হয়ে উঠল বর্ধমান শহরের কার্জন গেট এলাকা। বিশ্ব বাংলার লোগো উপড়ে ফেললেন সিপিএমকর্মীরা। পাশাপাশি, পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোড়ার অভিযোগও উঠেছে তাঁদের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় দু’পক্ষের কয়েক জন জখম হয়েছেন।

এদিনের সভায় সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ সেলিম বলেন, ‘‘লুট হলে, ধর্ষণ হলে এ রাজ্যের পুলিশকে খুঁজে পাওয়া যায় না। ১৯৫৯ সালে হাজার হাজার মানুষ খাদ্যের দাবিতে সমবেত হন। পুলিশ লাঠি পিটিয়ে ৮৪ জন মানুষকে খুন করে। প্রত্যেক বছর আমরা শহিদদের স্মরণ করি। কিন্তু গুন্ডা-পুলিশ নামিয়ে আমাদের দমানো যায়নি। শুভেন্দু অধিকারী কম দুর্নীতিগ্রস্ত নন। মুখ্যমন্ত্রী তালিকা করে নাম বলে দিয়েছেন। উনি যতই বিশ্ব বাংলার ঢাক পেটান না কেন, ওই ঢাক ফেটে গিয়েছে। লাল হঠেছে, কিন্তু রাজ্য বাঁচেনি। আজ রাজ্যকে বাঁচাতে লাল ঝান্ডা আবার রাস্তায় নেমেছে।’’


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ