প্রচ্ছদ 

উত্তপ্ত উত্তরপ্রদেশে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে চার সদস্যের সংসদীয় প্রতিনিধিদল রবিবার লখনউ পাঠাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে যোগী রাজ্যে বিক্ষোভ-আন্দোলন আজও চলছে । অভিযোগ উঠেছে পুলিশের গুলিতে এই রাজ্যে ১১জনের মৃত্যু হয়েছে । এই খবর আসার পরেই উত্তরপ্রদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখতে এবং আন্দোরনকারীদের প্রতি সহানুভূতি জানাতে সংসদীয় এক প্রতিনিধি দল পাঠাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস । তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে উত্তরপ্রদেশে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে নিহতদের পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে করবে এই সাংসদরা ।আগামিকাল, রবিরারই ওই প্রতিনিধিদল পৌঁছবে লখনউ শনিবার তৃণমূলের তরফে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কথা জানানো হয়েছে

চার সদস্যের ওই দলে থাকবেন লোকসভার প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী, জয়নগরের তৃণমূল সাংসদ প্রতিমা মণ্ডল, রাজ্যসভার সাংসদ মহম্মদ নাদিমূল হক এবং আবির বিশ্বাস। নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার পাশাপাশি আহতদের সঙ্গেও কথা বলবেন তাঁরা। দিন ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে লেখা হয়েছে, ‘‘মানবিকতার মিশনে উত্তরপ্রদেশের লখনউতে যাচ্ছেন আমাদের প্রতিনিধিদল। যাঁরা নিহত হয়েছেন, তাঁদের শোকার্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করবে প্রতিনিধিদল। তা ছাড়াও, ওই ঘটনায় আহতদের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা।’’

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ)-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদবিক্ষোভে গত কয়েক দিন ধরেই অশান্ত যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য। বৃহস্পতিবার থেকে সেই বিক্ষোভ ঘিরে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন জেলা।  বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের লাঠিচার্জ, গুলিচালনা ছাড়াও পাল্টা হিসাবে পুলিশের গাড়িতে আগুন, পাথর ছোড়াবিক্ষোভ ঘিরে উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। নিহত হন এক নাবালকসহ ১১ জন। এই ঘটনার পর গভীর রাত থেকেই লখনউ, বিজনৌর, মেরঠ, ফিরোজাবাদ, কানপুর, সম্বল, মোরাদাবাদ, আলিগড়, বরেলী, প্রয়াগরাজ (ইলাহাবাদ)-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। গোটা ঘটনায় রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দিন বৈঠকে বসবেন যোগী আদিত্যনাথ


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment