কলকাতা 

রুজিরার আবেদনের ভিত্তিতে সংবাদ মাধ্যম ও ইডির পরিধি বেঁধে দিল কলকাতা হাইকোর্ট! কী নির্দেশ দিল আদালত?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : তৃনমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর পরিবারের সম্মান রক্ষায় সংবাদ মাধ্যম কে নিয়ন্ত্রণের আর্জি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন।সেই মামলায় আজ মঙ্গলবার এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এবং সংবাদমাধ্যমের পরিধি বেঁধে দিল কলকাতা হাই কোর্ট। ইডি এবং সংবাদমাধ্যমকে নির্দেশিকা দিলেন বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য।

আদালতের অন্তর্বর্তিকালীন নির্দেশে বলা হয়েছে, যে কোনও ক্ষেত্রে তল্লাশি এবং বাজেয়াপ্তের সময় কোনও লাইভ স্ট্রিমিং (সরাসরি সম্প্রচার) করা যাবে না। তল্লাশি অভিযানের সময় আগে থেকে তা সংবাদমাধ্যমকে জানাতে পারবে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সংবাদমাধ্যমকে সঙ্গে নিয়ে গিয়ে কোথাও তল্লাশি অভিযান চালাতে পারবে না ইডি। এই সংক্রান্ত কোনও খবর পরিবেশন করলে অভিযুক্তের ছবি ব্যবহার করতে পারবে না সংবাদমাধ্যম। চার্জশিট জমা পড়ার আগে কোনও ছবি প্রকাশ করা যাবে না। এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী জানুয়ারি মাসে।

Advertisement

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এর আগে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি। সম্প্রতি, অভিষেকের সংস্থা ‘লিপ্‌স অ্যান্ড বাউন্ডস’-এর সূত্রে এই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে রুজিরাকেও। এই তদন্তের মধ্যেই সংবাদমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণের আর্জি জানিয়ে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন অভিষেক-পত্নী। রুজিরার আইনজীবীদের অভিযোগ, সংবাদমাধ্যম এমন ভাবে সংবাদ পরিবেশন করছে যাতে তাঁর এবং পরিবারের সম্মান নষ্ট করা হচ্ছে। তাঁদের আরও অভিযোগ, কোনও বিষয়ে তদন্ত শেষ হওয়ার আগে সংবাদমাধ্যম কার্যত বিচার করে ফেলছে।

এই মামলায় মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত বা নির্দেশ সংবাদমাধ্যমের কাছে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ালো। কারণ এটা তো ভাবতেই হবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একজন রাজনীতিবিদ এটা যেমন সত্য তার স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন গৃহবধূ এটাও সত্য। কিন্তু যেভাবে সংবাদ মাধ্যমগুলি ঘটনার বিচারে না গিয়ে মামলার শেষ পরিণতিতে না দেখে শুধুমাত্র তলব করাকে কেন্দ্র করে হৈচৈ করছে তাতে আর যাই হোক পারিবারিক সম্মান যে নষ্ট হচ্ছে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই। আর আজকের কলকাতা হাইকোর্টের এই রায় তাতেই সিলমোহর দিল।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ