দেশ 

রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দফতর , সুপ্রিম কোর্ট আদালত অবমাননার নোটিশ পাঠাল রাজ্যের ডিজিপি , মুখ্যসচিব ও পুলিশ কমিশনারকে ; ১৮ ফেব্রূয়ারির মধ্যে উত্তর তলব , সন্তুষ্ট না হলে ২০ ফেব্রূয়ারি স্বশরীরে হাজিরার নির্দেশ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। দিল্লি থেকে রাজ্য সরকারকে এই নির্দেশ পাঠানো হয়েছে মুখ্যসচিবকে। রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিসের রুল ও  শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগ আনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত রবিবার সন্ধেয় মেট্রো চ্যানেলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনায় বসার পরেই তাঁর পাশে গিয়ে বসে থাকতে দেখা গিয়েছিল রাজীব কুমারকে। প্রসঙ্গত, রাজীব কুমার ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিসের অফিসার । তাঁর নিয়োগকর্তা কেন্দ্র এবং তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রণে চাকরি করেন। কেন্দ্রীয় হারে বেতনও পেয়ে থাকেন । এ হেন একজন আইপিএস অফিসার কোনো রাজনৈতিক মঞ্চে বসে থাকতে পারেন না । এটা নিরপেক্ষতা এবং সার্ভিস রুলের বিরোধী  ।সূত্রের খবর , এদিনের নির্দেশের পর কেন্দ্র অপেক্ষা করবে, রাজ্য কী ব্যবস্থা নেয় তার ওপর।

এদিন সকালে, সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে আদালত অবমাননার নোটিশ জারি করা হয় মুখ্যসচিব মলয় দে, ডিজি বীরেন্দ্র, পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। ১৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাঁদেরকে নোটিসের জবাব দিতে হবে। তাঁদের জবাব খতিয়ে দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে সর্বোচ্চ আদালত। রবিবার প্রথমে  রাজীব কুমারের সরকারি বাসভবনে কাজে বাধার অভিযোগ করে সিবিআই।

রবিবার বিকেলে প্রথমে রাজীব কুমারের বাড়িতে কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করে সিবিআই। অ্যাটর্নি জেনারেল বিষয়টি তোলেন আদালতে সর্বোচ্চ আদালতে।তিনি  বলেন ২০১৪-র সুপ্রিম কোর্টের আদেশে তদন্ত করছে সিবিআই। সেই কাজে বাধা দিয়েছেন মুখ্যসচিব মলয় দে, ডিজি বীরেন্দ্র, পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার।  পরে মেট্রো চ্যানেলে মুখ্যমন্ত্রী পাশে দেখা যায় মুখ্যসচিব মলয় দে, ডিজি বীরেন্দ্র, পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে। শীর্ষ আদালত এই তথ্য পাওয়ার পরেই জানিয়ে দেয় , আগামী ১৮ ফেব্রূয়ারির মধ্যে কলকাতা পুলিশ কমিশনার , মুখ্য সচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিবকে আদালতকে জানতে হবে কেন তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করা হবে না । তাঁদের পাঠানো উত্তরে আদালত সন্তুষ্ট না হলে ২০ তারিখে ওই তিনি সর্বোচ্চ আধিকারিক সুপ্রিম কোর্টে স্বশরীরে হাজির হতে হবে বলে আদালত নির্দেশ দিয়েছে ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment