কলকাতা 

লাল ঝান্ডার ঝড়ে দিশেহারা মোদী ভাই –দিদি ভাই : মমতার আমলে সমগ্র বাংলা জুড়ে সম্প্রীতি বিপন্ন : মুহাম্মদ সেলিম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বাংলায় ৩৪ বছর বামেরা শাসন করেছে । তাদের আমলে কৃষক-শ্রমিক থেকে সংখ্যালঘুদের সম সুযোগ সম অধিকার ছিল । বাংলার সংখ্যালঘুদের জানমালের নিরাপত্তা ছিল । আর মমতার আমলে সমগ্র বাংলা জুড়ে সম্প্রীতি বিপন্ন । ধর্মের নামে বিভাজনের রাজনীতি শুরু করেছেন মোদী –মমতা । সেই বিভাজনের রাজনীতির শিকার সাধারণ মানুষ । বিভাজনের রাজনীতি থেকে বাংলা ও দেশকে বাঁচাতে হবে বলে রবিবার বামেদের ডাকা ব্রিগেড সমাবেশের মঞ্চ থেকে আহ্বান জানালেন সিপিএম নেতা ও সাংসদ মুহাম্মদ সেলিম । তিনি বলেন ,ধূলাগড় থেকে কালিয়াচক, দিনের পর দিন দাঙ্গা হয়েছে । দিদি-মোদী সেটিং-এরও অভিযোগ করেছেন তিনি। একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, বাম আমলে রাজ্যে দাঙ্গা হয়নি।বাংলা বাঁচাতে তৃণমূলকে তাড়াতে হবে, মহঃ সেলিম ব্রিগেডের সমাবেশে একথা বলার পরেই হাতে তালি সমবেত জনগণের। তিনি বলেন, নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে, লাল ঝড় আসছে।তিনি বলেন ,মোদী এখন কৃষক ওশ্রমিকদের প্রতি দরদ দেখাচ্ছেন । কিন্ত যেদিন লাল ঝান্ডার মিছিল মহারাষ্ট্রে বিপ্লব তৈরি করেছিল সেদিন তিনি কিছু বলেননি । আসলে তিনি লালঝান্ডা ভয় পাচ্ছেন । সেই জন্য দিদি আর মোদী দুজনেই কৃষক-শ্রমিকের বন্ধু সাজার চেষ্টা করছেন ।

তিনি দিদি ও মোদীর মধ্যে মেল বন্ধনের কথা বলেন । তিনি বলেন , মোদী বলেছেন , কংগ্রেস মুক্ত ভারত ; আর মমতা চাইছেন কংগ্রেস মুক্ত বাংলা আবার তিনি বলছেন , বিজেপি মুক্ত ভারত । আসলে তিনি চাইছেন কী সেটা স্পষ্ট নয় । আর অন্যদিকে মৌসম বদল হচ্ছে । তিনি আরও বলেন , আজকের সমাবেশ কাউকে প্রধানমন্ত্রী করার সমাবেশ নয় । আজকের সমাবেশ সাধারণ মানুষের দাবি আদায়ের সমাবেশ ।

ব্রিগেডের সমাবেশে সিপিএম নেতা মহঃ সেলিমের অভিযোগ, সব ভাগের কাটা কালীঘাটে গিয়ে জমা হয়। সারদা-নারদে কেন্দ্র কিছু করবে না বলেও মন্তব্য করেছেন সেলিম। হিটলার লালঝাণ্ডাকে শেষ করতে পারেননি, মোদী মমতারও পারবেন না, বলেছেন সেলিম। বিজেপি আর তৃণমূল মিলে বাংলার মানুষকে গরু আর শুয়োর বানাতে চাইছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

বুকের পাঁজর দিয়ে নয়া বাংলা গড়ার শপথ নিন আর খুন হওয়া তৃণমূল পরিবারগুলিকেও সঙ্গে নিন। আহ্বান জানিয়েছেন সেলিম।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment