কলকাতা 

বিজেপির যারা বিরোধিতা করবে তারা আমাদের সঙ্গে এলে ভালো , না এলেও আমাদের কোনো অসুবিধা নেই তবে বিজেপি বিরোধী সব দলের পাশে কংগ্রেস থাকবে : আমজাদ আলী

শেয়ার করুন
  • 19
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেখ ইবাদুল ইসলাম :  আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এই রাজ্যের কংগ্রেস কী করবে তা নিয়ে জোর চর্চা চলছে রাজ্য রাজনীতিতে । কোনো কোনো সংবাদ মাধ্যম খবর করছে একা লড়াই করবে কংগ্রেস । আবার কেউ বলছে , সিপিএমের সঙ্গে আঁতাত করবে কংগ্রেস । আর এই বিষয়টি নিয়ে এখনও রাজ্য কংগ্রেসের নেতারা স্পষ্টভাবে কিছু জানাচ্ছেন না । ফলে যা হবার তাই হচ্ছে , মানুষের মনে দ্বিধা দেখা দিচ্ছে । আর এরাজ্যের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী চুড়ান্ত অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে । তারা মনে করেছিল সিপিএম-কংগ্রেস জোট হলে রাজ্যের মুসলিম ভোট নিশ্চিন্তে ভাগ হয়ে যেত । কিন্ত জোট না হলে মুসলিম ভোটের সিংহভাগ চলে যাবে তৃণমূলে এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই । সোমেন মিত্র প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হওয়ার পর রাজ্যের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর মধ্যে কংগ্রেসের যে জনপ্রিয়তা বাড়ছিল তা থমকে যেতে পারে ।  এই প্রেক্ষাপটেই আমরা কথা বলেছিলাম রাজ্য কংগ্রেসের নেতা এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের ঘনিষ্ট বলে পরিচিত আইনজীবী ও প্রাক্তন সাংসদ সরদার আমজাদ আলীর সঙ্গে ।

স্পষ্ট প্রশ্ন ছিল , জোট না করলে এ রাজ্যে বিজেপিকে ঠেকানো কী সম্ভব হবে ? সরদার আমজাদ আলীর উত্তর সুস্পষ্ট জোট কার সঙ্গে ? কেন জোট ? ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে আমরা বামেদের সঙ্গে জোট করেছিলাম । কিন্ত নির্বাচন শেষ হওয়ার পরই সেই জোট সিপিএম ভেঙে দিল । কেন জোট ভাঙা হল তার কোনো সদুত্তর আজও আসেনি । আর এখন বিজেপিকে রোখার জন্য দেশজুড়ে একটা বিকল্প নেতৃত্ব প্রয়োজন ।

সেই বিকল্প নেতৃত্বটা দিতে পারে একমাত্র কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোট । আমজাদ বলেন , আমরা জাতীয় দলের একজন সদস্য হিসাবে জোর কাউকে বলতে পারি না আসুন বিজেপিকে তাড়াতে জোট করি । বামেদের উচিত ছিল এ বিষয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে কথা বলা । কারণ আমরা জোট ভাঙিনি । তা তারা এখন পর্যন্ত করছে না ।

আর তৃণমূল কংগ্রেস তো এক বছর ধরে বলে আসছে তারা ৪২ টি আসনেই প্রার্থী দেবে । সুতরাং আমাদের বলার কিছু নেই । কারণ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী মনে করেন , দেশে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য কেউ কংগ্রেস আসতে পারে , কেউ নাও আসতে পারে তবে বিজেপি বিরোধী সবদলগুলিকে কংগ্রেস স্বাগত জানাবে ।

আমাদের মূল লড়াই বিজেপি-আরএসএসের বিরুদ্ধে । তাই যারা এই লড়াইয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে লড়তে চায় তাদের যেমন আমরা স্বাগত জানাব । আবার যারা বাইরে থেকে বিজেপির সঙ্গে লড়াই করবে তাদেরকে স্বাগত জানব এটাই কংগ্রেসের ষ্ট্যান্ড ।

রাজ্যে যদি বামেরা কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না করে তাহলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হবে বামেদের , কারণ তারা একটিও আসন এরাজ্য থেকে জিততে পারবে না বলে রাজনৈতিক মহল মনে করছে । এরপরেও জোট নিয়ে বামেদের অনীহার কারণ কী ? এর উত্তরে সরদার আমজাদ আলী বলেন , সেটা ওরাই ভালো বলতে পারবে । যদি তারা মনে করে এরাজ্যে এককভাবে লড়াই করে তারা সফল হবে তাহলে আপত্তির কি আছে ?


শেয়ার করুন
  • 19
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment