কলকাতা 

শ্রীকান্ত মেহেতাকে গ্রেফতার করে সিবিআই সঠিক কাজ করেছে ; চোর ধরতে সিবিআই যে এখনও তৎপর সেটা মানুষ বুঝতে পারল : সোমেন মিত্র

শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের কর্ণধার শ্রীকান্ত মোহতা সিবিআই-র  গ্রেফতার হওয়ার পর বাংলার জনরবকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন , শ্রীকান্ত মেহেতা শুধু একজন  চলচ্চিত্র নির্মাতা নন, তিনি আমাদের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছের মানুষ বলে পরিচিত । তিনি মাঝে মাঝেই মুখ্যমন্ত্রীর বিদেশ সফরের সঙ্গী হতেন । শুধু তাই নয় তিনি পুরসভাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে লেক মল তৈরি করেছেন , পোর্টট্রাষ্টে জমি দখল করে ষ্টুডিও করেছিলেন । এহেন শ্রীকান্ত মোহতাকে বৃহস্পতিবার সিবিআই গ্রেফতার করে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে। তিনি যে প্রভাবশালী ছিলেন এনিয়ে কোনো সন্দেহ নেই বলে সোমেন মিত্র মন্তব্য করেন ।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র আরও বলেন, “শ্রীকান্ত মোহতা তো দিদির খুব কাছের লোক৷ দিদি যখন সিঙ্গাপুরের শিল্প আনতে গিয়েছিলেন তখন তাঁকে সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন৷ সে কেন গ্রেফতার হল তার কৈফিয়ত দিদি দেবেন৷ তবে সিবিআই সঠিক কাজ করেছে৷ চোর ধরতে সিবিআই যে এখনও তৎপর সেটা মানুষ বুঝতে পারল৷ দিদি এখন বলুক ইনি সৎ না চোর৷ সৎ হলে পাশে দাঁড়িয়ে লড়াই করুক৷”

উল্লেখ্য ,রোজভ্যালির কর্ণধার গৌতম কুণ্ডুকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় তিনি বলেছিলেন, শ্রীকান্ত মোহতাকে সিনেমা তৈরির জন্য ২৫ কোটি টাকা দিয়েছিলেন। যদিও চুক্তি অনুযায়ী কাজ হয়নি বলে অভিযোগ করেছিলেন গৌতম কুণ্ডু, সূত্রের খবর এমনটাই। আরও অভিযোগ. টাকা চাওয়ায় তাঁকে শ্রীকান্ত মোহতা হুমকি দেন।

সিবিআই-এর তরফে অভিযোগ করা হয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শ্রীকান্ত মোহতাকে বারবার দেখা করতে বলা হলেও, তা করেননি । সেজন্য এদিন সকালেই তাঁর অফিসে যায় সিবিআই-এর তদন্তকারী দল। কসবার অফিসে প্রায় সাড়ে তিন ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদের পরই শ্রীকান্ত মোহতা সাহায্য করেননি বলে অভিযোগ। ফলে তাঁকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেখানেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয় , আজ রাতেই ভুবনেশ্বর নিয়ে যাওয়া হবে কাল সিবিআই আদালতে পেশ করা হবে বলে সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে । ।

 


শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment