জেলা 

অধীর ম্যাজিকে এবার প্রাক্তন বাম বিধায়কও কংগ্রেসে যোগ দিলেন ; মুর্শিদাবাদে আগামী দিনে তৃণমূলকে দিনের বেলায় হ্যারিকেন নিয়ে খুঁজতে হবে হুংকার অধীরের

শেয়ার করুন
  • 247
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মুর্শিদাবাদের রবিন হুড এখনও তাঁর জনপ্রিয়তা ও সাংগঠনিক দক্ষতাকে যে বজায় রাখতে পেরেছেন তা বিগত কয়েক মাস ধরে অধীর চৌধুরি প্রমাণ করছেন । আসলে মুর্শিদাবাদে এখনও অধীর ম্যাজিক অটুট । এটা প্রমাণিত সত্য । সমগ্র মুর্শিদাবাদ জুড়ে আবার কংগ্রেসের জনজোয়ার লক্ষ্য করা যাচ্ছে । গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে হারিয়ে যাওয়া জমি প্রায় সবটাই উদ্ধার করে ফেলেছেন অধীর চৌধুরি । অধীর ম্যাজিকে কুপোকাৎ শাসক তৃণমূলও। প্রতিদিনই তৃণমূল ভেঙে কংগ্রেসে যোগদান অব্যাহত রয়েছে।

মঙ্গলবারও দেখা গেল বহরমপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে কংগ্রেসে যোগ দিলেন জঙ্গিপুরের দুবারের আরএসপি বিধায়ক তথা দীর্ঘদিনের বাম নেতা আবু হাসনাত সহ কয়েকশো বাম কর্মী সমর্থক৷ এদিন জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী প্রাক্তন বাম বিধায়কের হাতে কংগ্রেসের পতাকা তুলে দিয়ে দলে স্বাগত জানান। এদিন স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে অধীর চৌধুরি বলেন কয়েক মাসের মধ্যেই মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূলের অবস্থা শোলে সিনেমার মত হবে, এই জেলায় তৃণমূলকে দিনের বেলায় হ্যারিকেন নিয়ে খুঁজতে হবে।

 

এদিন সাংসদ অধীর চৌধুরী বলেন ‘দীর্ঘদিনের বাম আন্দোলনের নেতা আবু হাসনাত কোন দিন তৃণমূলের মত ঘরের টাকা লুঠ করে বা চাকরির নামে তোলা তুলে নেতা হননি। তিনি সৎ জন, সুবক্তা ও একজন নামকরা বিধায়ক ছিলেন আবু হাসনাত সাহেব। তিনি আজকে আমাদের দলে যোগদান করছেন, বামফ্রন্টের একজন আমাদের সাথে যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে মানুষ বুঝে গিয়েছে, তৃণমূলকে যদি কুপোকাৎ করতে হয় তবে কংগ্রেসের হাত শক্ত করো।’ এদিন এই সভা থেকে তিনি আবারও হুঙ্কার দিলেন ‘মুর্শিদাবাদের তিনে তিন তৃণমূলকে কবর দিন।’ অধীর রঞ্জন চৌধুরী এখানেই থেমে থাকেননি তিনি আরও বলেন এই জেলায় তৃণমূল তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ছে, টাকা দিয়ে পয়সা দিয়ে ভয় দেখিয়ে আর কর্মীদের আটকে রাখা যাচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, ‘এই জেলার ৮০ শতাংশ তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের দেহ তৃণমূল আর মন কংগ্রেসের। তারা সুযোগ খুঁজছেন কবে তারা কিভাবে জাতীয় কংগ্রেসে ফিরে আসবেন। এদিন সবশেষে অধীর চৌধুরী বলেন এক দো তিন চার-কংগ্রেস কা জয়জয়কার।’

 


শেয়ার করুন
  • 247
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment