কলকাতা 

মমতা সরকারের এক্সপায়ার ডেট মানুষ ঠিক করে দেবে ; বাংলায় কত বেকার কাজ পেয়েছে ? : মুকুল রায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মমতার ডাকা ব্রিগেড সমাবেশে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মোদী সরকারের সমালোচনা করতে গিয়ে বলেছেন বিজেপি সরকারের এক্সপায়ার ডেট এসেছে । তৃণমূল এই বক্তব্যের পর বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের প্রতিক্রিয়া তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত সরকারের এক্সপায়ারি ডেটটা কবে আসবে তা মানুষ ঠিক করবে। ব্রিগেডের সভায় দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল বলেন, “মোদি সরকারের এক্সপায়ারি ডেট পার হয়ে গেছে।” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের পালটা প্রতিক্রিয় দিতে গিয়ে সংবাদ সংস্থাকে  বিজেপি নেতা মুকুল  রায় বলেন “তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত সরকারের এক্সপায়ারি ডেটটা কবে? ২০১৯, ২০২০ না ২১? সেটাই এখন বাংলার মানুষ বিচার করবে।”

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্রিগেডে বিজেপিকে আক্রমণ করা নিয়ে মুখ খোলেন মুকুল রায় । তিনি বলেন , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কদিন থাকবে তা ঠিক করবে মানুষ । তবে এই জিনিস বেশিদিন চলতে পারে না । উল্লেখ্য ,গতকাল ব্রিগেডের সমাবেশে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে বলেন, “সিবিআইকে ব্যবহার করছে  বিজেপি সরকার।” এরও উত্তর দিয়েছেন মুকুলবাবু।

তিনি সংবাদ সংস্থাকে বলেন , ” বিহারে লালু প্রসাদ যাদব, উত্তরপ্রদেশে বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত শুরু হয় কংগ্রেস আমলেই।”  মুকুলবাবুর সংযোজন “ক্ষমতায় আসার আগে বিভিন্ন ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানাতেন।  তার রেকর্ড রয়েছে। তবে এখন কেন সিবিআইকে ভয় পাচ্ছেন?” সারদাকাণ্ডের তদন্ত নিয়ে বলেন, “সারদার তদন্ত শুরু হয়েছে কংগ্রেস আমলে। তৃণমূল কংগ্রেস বারবার নীরব মোদি, বিজয় মালিয়াকে টেনে আনছে। আমি বলছি কেন্দ্রীয় সরকার তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। এতে ব্যাঙ্কের টাকা ফ্রড হয়েছে ঠিকই কিন্তু গরিব মানুষের ক্ষতি হয়নি। গরিব মানুষ টাকা খুইয়েছ সারদা, রোজ়ভ্যালি, প্রয়াগে টাকা রেখে।”

ব্রিগেডে সভামঞ্চ থেকে বেকার সমস্যা ও কর্মসংস্থান ইশুতে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রসঙ্গে মুকুলবাবুর মন্তব্য “বাংলায় কত কর্মসংস্থান হয়েছে সেটা উনি বলুন আগে। টাকা দিয়ে মানুষকে ধরে রাখার চেষ্টা করছেন উনি।”

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment