কলকাতা বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

উদ্বোধন হলো সাহিত্য উৎসব ও লিটল ম্যাগাজিন মেলা-২০১৯

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেখ আব্দুল মান্নান,কলকাতা: বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গত ১১ জানুয়ারি,  বিধাননগর রবীন্দ্র- ওকাকুরা ভবন প্রাঙ্গণে পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমি আয়োজিত “সাহিত্য উৎসব ও লিটল ম্যাগাজিন মেলা ২০১৯”র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলো। উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী শুভাপ্রসন্ন ভট্টাচার্য। ১১-১৫ জানুয়ারি পাঁচ দিন মেলার উদ্বোধনী মঞ্চে সভাপতিত্ব করেন বাংলা আকাদেমির সভাপতি বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব শাঁওলি মিত্র। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাহিত্যিক রাম কুমার মুখোপাধ্যায়, কবি জয় গোস্বামি এবং পশ্চিমবঙ্গ তথ্য  সংস্কৃতি বিভাগের সচীব পিয়ালি সেনগুপ্ত। শিল্পী অরুণ গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিবেশিত দুখানি রবীন্দ্র সংগীত এবং পিয়ালি সেনগুপ্তর স্বাগত ভাষণের পর লিটল ম্যাগাজিন ও সাহিত্য সৃষ্টির বিভিন্ন বিষয়ক সম্পর্কে হৃদয়গ্রাহী বক্তব্য  পেশ করেন  ক্রমে উদ্বোধক শুভাপ্রসন্ন  ভট্টাচার্য , রামকুমার মুখোপাধ্যায় ও জয় গোস্বামি। রামকুমার বলেন  সৃজনের উৎসবই সাহিত্য উৎসব। তিনি মনে করেন প্রমথ চৌধুরীর ” সবুজ পত্র” এর হাত ধরেই লিটল ম্যগাজিন উৎসবের সূচনা।
এদিন মঞ্চে অভিক মজুমদার সম্পাদিত ” ফিরে দেখা” পত্রিকার আবোরণ উন্মোচন করেন সভামুখ্য শাঁওলি মিত্র। এছাড়া আকাদেমির তরফে অনুষ্ঠানে কয়েকজন কৃতি কথাশিল্পী, কবি, সাহিত্যিক, শিল্পীকে সারস্বত সম্মান সহ বিভিন্ন  সম্মানে  সংবর্ধিত করা হয়। সংবর্ধিত কৃতিরা হলেন শমিক ঘোষ( লীলা রায় সম্মান), অসিত পাল( তাপসী বসু সম্মান), জয়া চৌধুরী( লীলা রায় সম্মান), সুকান্ত গঙ্গোপ্ধ্যায়( শান্তি সাহা স্মারক), দেবাশিষ দে( মনোজ মোহন স্মারক), রাহুল পুরকায়স্থ( আল্পনা আচার্য স্মারক), অর্পিতা কুণ্ডু( শক্তি চট্টোপাধ্যায় স্মারক), জয়া মিত্র( সুধা বসু স্মারক)।
এছাড়া সম্মানিত হন অম্লান দাশগুপ্ত, রঞ্জিত সিংহ এবং  বিভিন্ন আঙ্গিকে শ্রেষ্ঠ  লিটল ম্যাগাজিন সম্মান পান ক্রমে  সৌরেন সমাজদার সম্পাদিত ‘ধ্রুপদ’,চিরঞ্জীব শুর  সম্পাদিত ‘আলোচনা চক্র’ ও নীলকমল সরকার সম্পাদিত ‘অক্ষরেখা’ পত্রিকা। মধূপর্ণী স্মারক সম্মানে সম্মানীত করা হয় ‘সমতট’ পত্রিকাকে।
উল্লেখ্য এবার তিনশ পত্রিকার স্টল বিশিষ্ট প্রশস্ত মেলা প্রাঙ্গণ আকাদেমির তরফে রুচিসম্মতভাবে সাজিয়ে তোলা হয়েছে বাংলা সাহিত্যের কিংবন্তী সাহিত্যকদের নামের রঙ- বেরঙের বোর্ড দিয়ে। যা অত্যন্ত দৃষ্টি নন্দন। তবে সমস্ত মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে কোথাও দেখা গল না পরলোকগত সাহিত্যক সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ ও সাহিত্যক আফসার আহমেদের নাম। যা অত্যন্ত পরিতাপের।

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment