কলকাতা 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মোদীকে যতই আক্রমণ করুক না কেন তলে তলে যোগাযোগ রাখেন বিজেপির সঙ্গে : সরদার আমজাদ আলী

শেয়ার করুন
  • 487
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : সম্প্রতি দিল্লিতে বিজেপি নেতা মুকুল রায় সাংবাদিকদের বলেছিলেন , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তলে তলে বিজেপি এবং এনডিএ-র সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে থাকেন । তাঁর এই বিস্ফোরক উক্তির পর তৃণমূলের পক্ষ থেকে জোরালো কোন প্রতিবাদ দেখা যায়নি । উল্টো দিকে কংগ্রেস সিপিএম দাবি করছে তারা এতদিন ধরে যা বলে আসছিল তারই প্রতিধ্বনি শোনা গেল বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের মুখে ।

এ প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা –প্রাক্তন সাংসদ ও বিশিষ্ট আইনজীবী সরদার আমজাদ আলী বলেন , মমতার সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর শুধু সর্ম্পক রয়েছে তা নয় , দুজনের বিভিন্ন বিষয়ে মিলও রয়েছে । প্রথমত , কয়েকদিন আগে মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতি ও শ্রমিক বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে দেশের ১০টি বড় শ্রমিক সংগঠন ৪৮ ঘন্টার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল । সেই ধর্মঘটের বিরুদ্ধে বিজেপি সরকার রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করেনি , উল্টো দিকে মমতা সরকার ধর্মঘটীদের সঙ্গে যে আচরণ করেছে তা বেআইনি । সমগ্র দেশজুড়ে ধর্মঘট নিয়ে কোথাও কোনো অশান্তি হয়নি । আর বাংলায় অশান্তি হয়েছে । তাহলে কী মমতা সরকার শ্রমিক বিরোধী সরকার ? শ্রমিকদের অধিকার বলতে ন্যুনতম মজুরির দাবিটি ছিল গুরুত্বপূর্ন । সেই দাবিকে সমর্থন করে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে ডাকা ধর্মঘটকে সমর্থন করা উচিত ছিল মমতার। তিনি তা করেননি । বরং ধর্মঘট ভেঙে দিতে উদ্যোগ নিয়েছিলেন , এতে কার সুবিধা হয়েছে ? নিশ্চয় বিজেপির । উল্টো দিকে তিনি দাবি করছেন , বনধ নাকি কর্মনাশা ! তিনি তো বিরোধী দলের নেতা থাকাকালীন সময়ে ৭৩ বার বনধ ডেকেছেন । তাছাড়া তিনি যখন-তখন বনধ ডাকতেন । তাঁর কাছে যদি আমাদের শুনতে হয় নীতি কথা বনধে কর্মদিবস নষ্ট হয় , রাজ্যের আর্থিক ক্ষতি হয় তাহলে প্রশ্ন ওঠে বিরোধী দলের নেতা থাকাকালীন সময়ে তাঁর একথা কেন মনে আসেনি ? আসলে তিনি বিজেপির স্বার্থে এই বনধের বিরোধিতা করেছেন । এখানেই মোদীর সঙ্গে মমতার সর্ম্পক শুধু নয় , মিলও যথেষ্ট ।

অন্যদিকে , দেশের শতাব্দী প্রাচীন দলের সভাপতি রাহুল গান্ধী যখন অনিল আম্বানীর মেয়ের বিয়েতে যাননি ঠিক তখনই দেখা গেল মমতা সেখানে গিয়ে হাজির । কে অনিল আম্বানী ? যিনি মোদীর একান্ত আস্থাভাজন শিল্পপতি । তাঁর বাড়িতে গিয়ে মমতা কী করেছেন ? কেন গিয়েছেন ? আসলে মোদী গেছেন বলেই তিনি গেছেন । রাহুল গান্ধী যখন রাফাল ইস্যুতে অনিল আম্বানীর বিরুদ্ধে মতপ্রকাশ করছেন ঠিক সেই সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিরব । রাফাল ইস্যুতে সেভাবে সক্রিয় কেন নয় মমতা ? কাকে খুশি করার জন্য রাফাল নিয়ে নিরব রয়েছেন ? আর এক প্রশ্নের উত্তরে সরদার আমজাদ আলী বলেন , দুর্গোপুজো কমিটিগুলিকে আয়কর দফতর নোটিশ দিয়ে কোনো ভুল করেননি । দেশের যে আয়কর আইন আছে তা থেকে কেউ বাইরে থাকতে পারে না । মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে আয়কর দফতরকে আক্রমণ করেছেন তা আসলে একটা সম্প্রদায়কে তুষ্ট করার জন্য ।

সংখ্যালঘু ইস্যুতে মোদীর মত সরাসরি হিন্দু তাস খেলেন না মমতা বলে আমজাদ সাহেবের অভিমত । তবে তিনি এরাজ্য যেভাবে শাসন করছেন তাতে এটা স্পষ্ট বিজেপির উত্থানের নেপথ্যে তাঁর অবদান কোনো অংশেই কম নয় ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 487
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment