Featured Video Play Iconজেলা 

মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ডাকা ধর্মঘটের প্রভাব অনেকটাই পড়েছে রাজ্যে

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : নরেন্দ্র মোদী  সরকারের  জন-বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে দেশের ১০টি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনের ডাকে দু’দিনের হরতালের ডাক দেওয়া হয়। আজ ছিল সেই হরতালের প্রথম দিন। কলকাতা সহ একাধিক জেলায় অশান্তির খবর পাওয়া গেছে। গ্রেফতার হন সুজন চক্রবর্তী, অনাদি সাউয়ের মতো বাম নেতারা। বামেদের ডাকা বনধে প্রভাব এই রাজ্যে ভালই পড়েছে । উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বনধের প্রভাব পড়েছে । মালদহ মুর্শিদাবাদ সহ দক্ষিণবঙ্গের অনেক এলাকাতে এবার বাম কর্মীরা রাস্তায় নেমে বনধ করেছে । হাওড়ায় সকাল থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায় । বনধ সমর্থকরা ট্রেন অবরোধ করে । পূর্ব মেদিনীপুরের এগরায় সকালেই বনধ সমর্থকরা ট্রেন অবরোধ করে । নদীয়াতেও বনধের প্রভাব পড়েছে ; ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলেও বনধের প্রভাব পড়েছে ।

বামেদের ডাকা দুদিন ব্যাপী সারা ভারত বন্ধের মিশ্র প্রভাব পড়লো দক্ষিন দিনাজপুর জেলা জুড়ে। মোট ১২ দফা দাবীতে ৮ ও ৯ তারিখ দুদিন ব্যাপী সারা ভারত জুড়ে বনধ ঢেকেছে বামেরা। সেই বনধের মিশ্র প্রভাব পড়লো দিনাজপুর জেলার বিস্তীর্ণ এলাকায়। বনধ সফল করতে এদিন সকাল থেকেই গঙ্গারামপুর, বুনিয়াদপুর ও বালুরঘাট শহরের রাস্তায় রাস্তায় বাম সমর্থক ও নেতারা উপস্থিত ছিলেন পাশাপাশি অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশাল পুলিশ বাহিনী উপস্থিত ছিল। এদিন দোকানপাট বন্ধ ছিল গঙ্গারামপুর বাসষ্ট্যান্ডে বাসগুলি সারিবদ্ধ ভাবে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায় বেসরকারী বাস চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তির শিকার হোন নিত্যযাত্রী থেকে শুরু করে সরকারি চাকুরিজীবীরা। সরকারি বাস চললেও ভীড় ছিল মারাত্মক তাতে প্রায় বাঁদুর ঝোলা হয়ে যাত্রীরা নিজেদের গন্তব্যে পৌছায়। অন্যদিকে টোটো ও অটোগুলি যাত্রী নিয়ে সারাদিন শহর জুড়ে দাপিয়ে বেড়ায়।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment