দেশ 

প্রবীণ অভিনেতা নাসিরউদ্দিনের পাশে দাঁড়িয়ে অমর্ত্য সেনের মন্তব্য “জরুরি অবস্থা ! আছে তো নিশ্চয়। আর সেটা ঘোষিত নয়।”

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : প্রবীণ অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহর পাশে দাঁড়ালেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। কলকাতায় এসে তাঁর মন্তব্য, ”নাসিরুদ্দিন শাহ ঠিকই বলেছেন। তাঁর প্রতি লোকজন যে অশ্রদ্ধা দেখিয়েছে আমাদের তার প্রতিবাদ করা উচিত।”

উল্লেখ্য,  অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহ উত্তরপ্রদেশের বুলন্দ শহরে গোরক্ষকদের হাতে পুলিশ অফিসারের মৃত্যুর ঘটনা মন্তব্য করতে গিয়ে বলেছিলেন”বিভিন্ন এলাকায় দেখা যাচ্ছে যে পুলিশ অফিসারের থেকে একটি গোরুর মৃত্যু বেশি গুরুত্বপূর্ণ।” শুক্রবারঅ্যামনেস্টির ভিডিওতে নাসিরুদ্দিন শাহ জানান, ”অধিকারের কথা বললেই কণ্ঠরোধ। মুখ খুললেই জেলে পাঠানো হচ্ছে।’ পাশাপাশি তাঁর দাবি, বুদ্ধিজীবীদের কাজে বাধা দেওয়া হচ্ছে, নিজস্ব মত প্রকাশ করতে দেওয়া হচ্ছে না । সাংবাদিকদেরও দমিয়ে রাখা হচ্ছে। নাসিরুদ্দিন দাবি করেন, ‘ধর্মীয় মোড়কে’ ঘৃণার প্রাচীর গড়া হচ্ছে। সকলকে সত্যি কথা বলতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এমনই দেশই কি আমরা চেয়েছিলাম?’

তিনি আরও বলেন, “দেশটা ঘৃণা আর নিষ্ঠুরতায় ভেসে যাচ্ছে। ধর্মের নাম নিয়ে হিংসা বেড়ে চলেছে। শিল্পীদের কণ্ঠরোধ করে রাখা হচ্ছে, সাংবাদিকরাও নির্বাক। নির্দোষ মানুষগুলিকে বিনা কারণে হত্যা করা হচ্ছে।” তিনি আরও বলেন, “যাঁরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলছে তাঁদের বাড়িতে রেড পড়ছে, লাইসেন্স বাতিল হচ্ছে, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সিজ় করে দেওয়া হচ্ছে, চুপ করিয়ে দেওয়া হচ্ছে।”

রবিবার কলকাতায় নাসিরুদ্দিনের বক্তব্য প্রসঙ্গে অমর্ত্য সেনের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়। তিনি বলেন, “যারা মন্তব্যের জন্য নাসিরুদ্দিন শাহর বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে তারা আসলে অসহিষ্ণুতা দেখাচ্ছে। অসহিষ্ণুতা সুস্থ গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সর্বশেষ জিনিস। সামনে নির্বাচন রয়েছে, দেখা যাক জনগণ এবার কোন দিকে ভোট দেবে।” নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের মতে, “দেশে আগের থেকে অসহিষ্ণুতা বেড়েছে। এর সামাজিক কারণ যেমন আছে সেরকম রাজনৈতিক কারণও আছে। দেশ চালনার বিষয়টিও রয়েছে। দেশে যা ঘটছে তা আপত্তিজনক। এটা বন্ধ হওয়া উচিত। অন্যদের সহ্য করার ক্ষমতা হারানো একটি গুরুতর উদ্বেগের বিষয়। এটি চিন্তাশক্তি এবং বিশ্লেষণ করার ক্ষমতা হারানোর দিককে নির্দেশ করে।”

দেশে কি অঘোষিত জরুরি অবস্থা চলছে? উত্তরে অমর্ত্য সেন বলেন, “জরুরি অবস্থা ! আছে তো নিশ্চয়। আর সেটা ঘোষিত নয়।” জিএসটি ও নোটবাতিল নিয়ে ফের তিনি সরব হন।

এদিকে, নাসিরুদ্দিনের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে মুখ খুলেছেন আরও এক বলিউড তারকা আশুতোষ রানাও। তিনি বলেন, ‘বাক স্বাধীনতার ক্ষেত্রে দুটি মানুষের ভিন্ন মত থাকতে পারে, তহে সেই মতামত অভদ্রভাবে প্রকাশ করার জরুরি নয়।’


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment