কলকাতা 

একুশে জুলাইয়ের পোস্টারে নেই অভিষেক, শুধুই মমতা! রহস্য কি?

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : লোকসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভের পর এবার একুশে জুলাই কেমন হবে তা নিয়ে প্রশ্ন হচ্ছে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে। এবারের একুশে জুলাই এর সভা উপলক্ষে যে পোস্টার ব্যানার ছাপানো হয়েছে সেখানে নাকি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোন ছবি নেই শুধু মমতার ছবি রয়েছে।

এআইটিসির টুইটার হ্যান্ডেলের কভার পেজে ২১ জুলাইয়ের ছবিও দেওয়া হয়েছে। সেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি থাকলেও অভিষেকের ছবি নেই। স্বাভাবিকভাবে বিষয়টি নিয়ে কৌতূহল তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। তৃণমূলের অন্দরেও কানাঘুষো শুরু হয়েছে। অনেকে মনে করছেন, আবার সেই নভেম্বর বিপ্লব ফিরে আসতে পারে!

Advertisement

প্রসঙ্গত, লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পরই নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে অভিষেক জানিয়েছিলেন, কিছুদিন তিনি ছুটি নিচ্ছেন এবং সাংগঠনিক কাজ থেকে দূরে থাকবেন। অভিষেকের ওই পোস্ট ঘিরে সে সময় দলের অভ্যন্তরে একাধিক জল্পনা তৈরি হয়েছিল। পরে অবশ্য বাইপাসের ধারের একটি হাসপাতালে অভিষেকের একটি ছোট অস্ত্রোপচার হয়।

তবে ২১ জুলাইকে কেন্দ্র করে এআইটিসির টুইটার হ্যান্ডেলের কভার পেজের ছবি সামনে আসতে অভিষেকের টুইট ঘিরে ফের নতুন করে চর্চা শুরু হয়েছে। সেই সূত্রে উঠে আসছে নভেম্বর বিপ্লবের প্রসঙ্গও।

নভেম্বরে নেতাজি ইন্ডোরে তৃণমূলের কর্মী সভার নেপথ্যে রয়েছে আরও একটি ঘটনা। ১০০ দিনের বকেয়া টাকা আদায়ের দাবিতে এবং কেন্দ্রীয় বঞ্চনার প্রতিবাদে অভিষেকের নেতৃত্বে গত বছরের সেপ্টেম্বরে দিল্লিতে দু’দিনের ধর্না কর্মসূচি হয়েছিল। দিল্লিতে সমস্যার সুরাহা না হওয়ায় সেখান থেকেই রাজভবন অভিযানের ডাক দিয়েছিলেন অভিষেক। পুজোর মুখে টানা পাঁচদিন রাজভবনের সামনে ধর্নাতেও বসেছিলেন তিনি। পরে রাজ্যপালের আশ্বাসে ঘেরাও তুলে নেওয়া হলেও তখনই অভিষেক জানিয়েছিলেন, পুজো মিটলেই নেত্রীর নেতৃত্বে নভেম্বর থেকে ফের বৃহত্তর আন্দোলন সংগঠিত করা হবে।

স্বাভাবিকভাবে অভিষেক যে এজেন্ডাকে দিল্লি পর্যন্ত পৌঁছে দিয়েছিলেন, সেই সংক্রান্ত নভেম্বরের মিটিংয়েই তাঁর ছবি না থাকা নিয়ে দলের অভ্যন্তরেই প্রশ্ন উঠেছিল। এবারেও একুশের জুলাইয়ের সমাবেশ ঘিরে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ায় নতুন করে শোরগোল তৈরি হয়েছে দলের অভ্যন্তরে।

প্রসঙ্গত, দলনেত্রীর পাশাপাশি এবারের লোকসভা ভোটে উত্তর থেকে দক্ষিণ মাটি কামড়ে প্রচার করেছিলেন অভিষেকও। লোকসভায় ২৯টি আসনে জয়ের নেপথ্যে তাই অভিষেকের ভূমিকাকেও অস্বীকার করা যায় না।

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ